• বৃহস্পতিবার, ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০১:২১ পূর্বাহ্ন

প্রচন্ড গতিতে ধেয়ে আসছে সুপার সাইক্লোন মিগজাউম

/ ৪০ বার পঠিত
আপডেট: বুধবার, ৬ ডিসেম্বর, ২০২৩

নিজস্ব প্রতিবেদক:
গতকাল থেকে শুরু হয়েছে প্রচন্ড তান্ডব মিগজাউমের, অন্ধ্রপ্রদেশের ভারতের উপকূলে আঘাত হানে এই ঘূর্ণিঝড়। সেই সঙ্গে শুরু হয়েছে প্রবলভাবে বৃষ্টি। সমুদ্রের উপকূলবর্তী এলাকায় এর প্রভাব ফেলেছে। অতিবৃষ্টি ও মিগজাউমের তান্ডবে লন্ডভন্ড বহু এলাকা। এখনো পর্যন্ত যা খবর এই মিগজাউমের তান্ডবে মৃত্যু হয়েছে মোট সাতজনের।

সমুদ্র বন্দর ও উপকূলে মাছ ধরার ক্ষেত্রে আগাম সতর্কবার্তা দিয়েছেন অন্ধ্রপ্রদেশ রাজ্যে সরকার। এই মিগজাউমের প্রভাব বিস্তার করতে পারে ভারতের উড়িষ্যা এবং পশ্চিম বাংলা র বঙ্গপোসাগরের উপকূলীয় এলাকায়। তার মধ্যে দক্ষিণ চব্বিশ পরগনা, হাওড়া এবং হুগলি ও দুই মেদিনীপুর জেলা ও উত্তর চব্বিশ পরগনা জেলা এলাকা। পশ্চিম বাংলা সরকার ইতিমধ্যেই সুন্দর বন উপকূলবর্তী অঞ্চলের মানুষ কে মিগজাউমের প্রভাব সম্পর্কে আগাম সতর্কবার্তা দিয়েছেন। ভারতের বঙ্গপোসাগরের ঘূর্ণিঝড় মিগজাউমের প্রভাব বিস্তার করতে পারে ভারতের প্রতিবেশী দেশ বাংলাদেশের সাতক্ষীরা এবং বরিশাল ও খুলনা এবং যশোর জেলা ও বাগেরহাট জেলা এবং চট্রগ্রাম সহ বাংলাদেশের সমুদ্র বন্দর এলাকা।

বঙ্গপোসাগরের উপকূলীয় অঞ্চলে অবস্থিত নদী ও বাধ যাতে ক্ষতিগ্রস্ত না হয় তার জন্য তৈরি থাকতে বলা হয়েছে স্হানীয় মানুষজনের। মিগজাউমের তান্ডবে কতটা প্রভাব বিস্তার করবে সেই দিকে নজর রাখতে বলা হয়েছে জেলা প্রশাসক ও প্রশাসনিক কর্মকর্তাদের। নবান্ন থেকে খোঁজ নিতে শুরু করা হয়েছে মিগজাউমের আগমনের। তৈরি রাখা হয়েছে ভারতের জাতীয় বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনীর সদস্যদের। সেই সঙ্গে তৈরি করা হয়েছে ভারতের নৌবাহিনীর সদস্যদের। কিছু এলাকায় ঘনো মেঘ, হালকা বৃষ্টি, সাথে সাথে ঝড় বইতে শুরু করেছে। পশ্চিম বাংলা সমুদ্রের কাছাকাছি এলাকায় মেঘলা আকাশ ও মাঝে মাঝে হালকা বৃষ্টি শুরু হয়েছে ইতিমধ্যেই। গভীর সাগরে মাছ ধরতে যাওয়া থেকে বিরত থাকতে বলা হয়েছে ধীবর দের।


আরো পড়ুন