• মঙ্গলবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১২:৩৭ পূর্বাহ্ন
171764904_843966756543169_3638091190458102178_n

প্রধানমন্ত্রীর বিপক্ষে রাষ্ট্রদ্রোহের অভিযোগ

/ ৪ বার পঠিত
আপডেট: বুধবার, ২১ সেপ্টেম্বর, ২০২২
পাকিস্তান

পাকিস্তানের পরবর্তী সেনা প্রধান হিসেবে কাকে নিয়োগ দেওয়া হবে, তা নিয়ে বড় ভাই নওয়াজ শরিফের সঙ্গে আলোচনা করায় রাষ্ট্রদ্রোহের অভিযোগ উঠেছে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী শেহবাজ শরিফের বিরুদ্ধে।

পাকিস্তানের বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমের বলা হয়েছে, পাঞ্জাব প্রাদেশিক আইনসভার পার্লামেন্টারি অ্যাফেয়ার্স সম্পর্কিত মন্ত্রী বাশারাত রাজা সোমবারের অধিবেশনে একটি রেজুল্যুশন উত্থাপন করেন। সেখানে বলা হয়, পাকিস্তানের আগামীর সেনা প্রধান নিয়োগরে বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী শেহবাজ শরিফ তার বড়ভাই নওয়াজ শরিফের সঙ্গে আলোচনা ও পরামর্শ করেছেন। দুই দিন আগে লন্ডনে নওয়াজ-শেহবাজের এই আলোচনা হয়েছে বলে জানা গেছে।

ওই রেজুল্যুশনে আরও বলা হয়, পাকিস্তানের প্রেক্ষাপটে ও জাতীয় রাজনীতিতে সেনা প্রধান অত্যন্ত স্পর্ষকাতর বিষয়। তাই এই পদে কাকে নিয়োগ দেওয়া হবে সে বিষয়ে একজন পলাতক অপরাধীর সঙ্গে আলোচনা ও পরামর্শ করার মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী সংবিধানের ৬ নম্বর ধারা লঙ্ঘণ করেছেন।  এমনকি একজন পলাতক অপরাধীর পরামর্শ করার মাধ্যমে তিনি দেশের প্রতিরক্ষা বাহিনীকেও অপমান করেছেন। সংবিধান লঙ্ঘনের দায়ে পাঞ্জাব প্রাদেশিক পার্লামেন্ট থেকে (পাকিস্তানের) প্রধানমন্ত্রীর বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহের অভিযোগ উত্থাপন করা হলো।

উল্লেখ্য, পাকিস্তানের তিন বারের সাবেক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফ দুর্নীতির অভিযোগে অভিযুক্ত ও আদালতের দণ্ডপ্রাপ্ত।  


আরো পড়ুন