• শুক্রবার, ০২ ডিসেম্বর ২০২২, ০৫:২৯ পূর্বাহ্ন




ন্যাটোতে যোগ দেয়ার সম্ভাবনা শূন্যে নামিয়ে এনেছি: দিমিত্রি

/ ২৩ বার পঠিত
আপডেট: বুধবার, ২৪ আগস্ট, ২০২২
1661319023-dimitri

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ

গত ২৪ ফেব্রুয়ারি ইউক্রেনে বিশেষ সামরিক অভিযান শুরু করে বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম পরাশক্তি রাশিয়া। প্রায় পাঁচ মাস ধরে চলছে রাশিয়ার এই অভিযান। রাশিয়ার জাতীয় নিরাপত্তা পরিষদের উপ প্রধান ও সাবেক প্রেসিডেন্ট দিমিত্রি মেদভেদেভ বলেছেন, ইউক্রেনে তার দেশের বিশেষ সামরিক অভিযানের ফলে মার্কিন নেতৃত্বাধীন ন্যাটো জোটে কিয়েভের যোগ দেয়ার প্রচেষ্টা ভণ্ডুল হয়েছে। রাশিয়ার সামরিক অভিযানের ফলে ইউক্রেনের ন্যাটো জোটে যোগ দেয়ার সম্ভাবনা শূন্যে নেমে এসেছে।

স্থানীয় সময় মঙ্গলবার মস্কোয় এক বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

মেদভেদেভ বলেন, ইউক্রেন যদি নিজের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে চায় তাহলে রাশিয়ার সঙ্গে চুক্তি স্বাক্ষরের মাধ্যমেই তা নিশ্চিত করতে পারে।

গত ২৪ ফেব্রুয়ারি রাশিয়া বিশেষ সামরিক অভিযান শুরু করার পর ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি ইউরোপীয় ইউনিয়ন বা ইইউতে তার দেশের সদস্যপদ লাভের আবেদন করেন। তিনি সম্ভাব্য দ্রুততম সময়ের মধ্যে ইউক্রেনকে সদস্যপদ দেয়ার প্রক্রিয়া সম্পন্ন করার জন্য ইউরোপীয় দেশগুলোর প্রতি আহ্বান জানান।

এর প্রতিক্রিয়ায় রাশিয়া ঘোষণা করে, ইইউর বিষয়টি উপেক্ষা করলেও ইউক্রেনের ন্যাটোতে অন্তর্ভুক্তি কোনো অবস্থায় মেনে নেবে না মস্কো।

রাশিয়া জানায়, ইউক্রেন কখনও ন্যাটোতে যোগ দেবে না- এমন মুচলেকা দিলেই ইউক্রেনে সামরিক অভিযান বন্ধ করবে মস্কো। তবে ইউক্রেন এখনও ন্যাটোর ব্যাপারে আনুষ্ঠানিক কোনো ঘোষণা না দিলেও মার্কিন নেতৃত্বাধীন ওই সামরিক জোটে কিয়েভের যোগ দেয়ার আগ্রহের কথা এখন আর প্রকাশ্যে শোনা যায় না।

রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন ইউক্রেনের পূর্বাঞ্চলীয় রুশ ভাষাভাষি অধ্যুষিত দোনবাস অঞ্চলকে বেসামরিকীকরণের লক্ষ্যে গত ২৪ ফেব্রুয়ারি ইউক্রেনে বিশেষ সামরিক অভিযান শুরু করেন। আমেরিকা ও ইউরোপীয় দেশগুলো এই অভিযানকে ‘পুতিনের ভূমি জবরদখল’ বলে উল্লেখ করেছে। এসব পশ্চিমা দেশ মস্কোর বিরুদ্ধে কঠোর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে।

এদিকে রাশিয়া বলছে, ইউক্রেন মস্কোর একগুচ্ছ দাবি মেনে নিলে সামরিক অভিযান বন্ধ হবে। এসব দাবির মধ্যে রয়েছে, ইউক্রেনকে এই অঙ্গীকার করতে হবে যে, সে কখনও ন্যাটো জোটে যোগ দেবে না।





আরো পড়ুন