হালিশহর থানা এক সময় “মডেল থানা” হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হবে।

0
27

ওবায়েদুল হকের জন্ম পহেলা জানুয়ারী ১৯৭৮ সালে চাখার গ্রামে এক সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে । পিতা: মৃত: বীর মুক্তি যুদ্ধা এনায়েত হোসেন, চার ছেলে মেয়ের মধ্যে ছোট ছেলে এস এম ওবায়েদুল হক। বাবার স্বপ্ন ছিল ছেলে অনেক বড় হবে ঠিক আজ তাই হয়েছে।

নিজেকে আজ সৎ আদর্শবান অফিসার হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করতে পেরেছেন। করেছেন পুলিশ প্রশাসনের মুখ উজ্জল। বরিশাল জেলার বানারী পাড়ার গর্ব, গুনি এস এম ওবায়েদুল হক। চাখার ফজলুল হক ইস্টিটিউট থেকে ১৯৯২ সালে বিজ্ঞান বিভাগে স্টার মার্ক লাভ করেন, ১৯৯৪ সালে সরকারী ফজলুল হক কলেজ (চাখার) থেকে বিজ্ঞান বিভাগে প্রথম স্থান লাভ করেন, সরকারী তিতুমির কলেজ ঢাকা মহাখালী থেকে অনার্স মাস্টার্স শেষ করেন ২০০১ সালে। আর পড়া শুনা শেষ করার পরেই ২০০১ সালে এস আই পদে পুলিশ বাহিনীতে যোগদান করেন খুলনা মেট্টোপলিটন পুলিশ লাইনে। ২০০৪-২০০৭ সাল পর্যন্ত র‌্যাব-২ এ যোগদান এবং কর্মরত ছিলেন এবং দক্ষতার সহিত দায়িত্ব পালন করেন।

শেষে খুলনা মেট্টোপলিটন পুলিশ লাইনে যোগদান করেন, বিভিন্ন থানায় সফলতার সহিত দায়িত্ব পালন করেন। পরবর্তীতে সোনাডাঙ্গা থানায় যোগদান করেন। একটা বিষয় না বললেই নয় বাংলাদেশের আলোচিত কিলার সন্ত্রাসীদের গডফাদার এরশাদ শিকদারকে গ্রেপ্তার করার পেছনে তার অবদান ছিল প্রশংসনীয়। ২০০৮ সালে ঢাকা মুন্সিগঞ্জ সদর থানায় এস আই পদে যোগদান করেন এবং দীর্ঘ তিন বছর সফলতার সহিত দায়িত্ব পালন শেষে শিল্প নগরী নারায়নগঞ্জ থানায় ২০১১ থেকে ২০১৪ সাল পর্যন্ত সফলতার সহিত সেকেন্ড অফিসারের দায়িত্ব পালন করেন।

পরবর্তীতে সোনারগাঁও থানা থেকে ওসি তদন্তের পদোন্নতি পেয়ে টাংঙ্গাইল নাগরপুর ও কালিহাতি দুই থানায় ২০১৫ ও ২০১৬ সাল পর্যন্ত সফলতার সহিত দায়িত্ব পালন করেন। পুনরায় শিল্প নগরী নারায়নগঞ্জ সোনারগাঁও-এ ওসি তদন্ত হিসেবে যোগদান করেন, ২০১৮ ই জুলাই পর্যন্ত দায়িত্ব পালন শেষে ২০১৮ এর ১৯ শে জুলাই এ চট্টগ্রাম ডিবিতে যোগদান করেন ও তিনি সফলতার সহিত দায়িত্ব পালন করেন। ১৫ ই অক্টোবর ২০১৮ তাং চট্টগ্রাম সি এম পি হালিশহর থানায় অফিসার ইনচার্জ হিসেবে যোগদান করেন। যোগদানের পর থেকে অনেক সফলতা কুড়িয়েছেন। এস এম ওবায়েদুল হক
বলেন আমার পরিকল্পনা হালিশহর এক সময় মডেল থানা হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হবে। আমরা জনগণের বন্ধু পূর্বে ছিলাম বর্তমানে আছি এবং ভবিষ্যতেও থাকবো। আমি চাই হালিশহর থানা এরিয়ায় কোন মাদক ব্যবসায়ী থাকবে না। থাকবে না কোন অনিয়ম, দুর্নীতি আশা করি জনগণ আমাদের পাশে থেকে সকল তথ্য দিয়ে সহযোগিতা করবে।

আরেকটা বিষয় তিনি বললেন মিডিয়া কর্মীরা যে কোন তথ্য জানার জন্য নির্বিগ্নে আমার থানায় আসতে পারবে এবং সকল সহযোগিতা থানা থেকে পাবে। আর আমার থানার কোন অফিসার যদি কোন সংবাদ কর্মীকে অহেতুক হয়রানী করে তাহলে তার বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। পরিবার নিয়ে কথা হলে তিনি বলেন দুই ছেলে এক মেয়েকে নিয়ে বেশ সুখেই আছি আল্লাহর রহমতে। আমি সকলের কাছে দোয়া চাই, রাষ্ট্র ও জনগণের সেবা যেন নিশ্চিত করতে পারি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here