• শনিবার, ১৩ এপ্রিল ২০২৪, ১০:৩৩ অপরাহ্ন

আরাকান আর্মির কাছে পরাজিত হয়ে ভারতে পালিয়ে গেছে জান্তা বাহিনীর সৈন্য- ২৭৮

/ ৫৭ বার পঠিত
আপডেট: শুক্রবার, ১৯ জানুয়ারি, ২০২৪

অনলাইন ডেস্ক:
আরাকান আর্মির কাছে পরাজিত হয়ে ভারতে পালিয়ে গেছে মিয়ানমারের জান্তা বাহিনীর প্রায় ৩০০ জন সৈন্য। এ নিয়ে নভেম্বরের মাঝামাঝি থেকে জান্তা বাহিনীর ৭০০ জনেরও বেশি সৈন্য ভারতে আশ্রয় নিয়েছে। খবর ইরাবতীর।

আরাকান আর্মি কর্তৃক প্রদত্ত এক বিবৃতিতে জানা যায়, পালিয়ে যাওয়া সৈন্যরা চিন প্রদেশের দক্ষিণাঞ্চলে অবস্থিত পালেটা শহরের নামাদা এবং খান খা টং ক্যাম্পের অধিবাসী ছিলেন।

রোববার(১৪ জানুয়ারি) আরাকান আর্মি বেসামরিক নাগরিকদের জান্তা সৈন্যদের ব্যাপারে সতর্ক থাকতে আহ্বান জানায় এবং তারা জান্তা সৈন্যদের ধাওয়া করছে বলে আশ্বস্ত করে।

জানুয়ারির প্রথম দিকে আরাকান আর্মি পালেটা শহরের চিন লেট ওয়া ক্যাম্প দখল করে নেয়ার পর ১০৪ জন জান্তা সৈন্য পালিয়ে যায়। তারা মিজোরামে প্রবেশ করে এবং পরে তাদেরকে ভারত সরকার বিমানযোগে রাখাইন রাজ্যের রাজধানী সিত্তেতে পাঠিয়ে দেয়।

ডিসেম্বরের শেষদিকে পালেটা শহরের আরও একটি ক্যাম্প আরাকান আর্মির দখলে আসার পর ১৫১ জন জান্তা সৈন্য পালিয়ে গিয়ে মিজোরাম পুলিশের কাছে আত্মসমর্পণ করে।

বৃহস্পতিবার (১৮ জানুয়ারি) এক সংবাদ সম্মেলনে ভারতের সেনাবাহিনীর প্রধান জেনারেল মনোজ পান্ডে জানান, নভেম্বর এবং ডিসেম্বর মাসে ৪১৬ জন জান্তা সৈন্য সীমান্ত অতিক্রম করে ভারতে প্রবেশ করেছে। তিনি সীমান্তে নিরাপত্তার ব্যাপারে উদ্বেগ প্রকাশ করেন এবং ভারতীয় সেনাবাহিনী পরিস্থিতি গভীরভাবে পর্যবেক্ষণ করছে বলে উল্লেখ করেন।

মিয়ানমারের বিদ্রোহী সংগঠনগুলোর জোট গত ২৭ অক্টোবর অপারেশন ১০২৭ নামে এক অভিযান শুরু করে, যার পর থেকে জান্তা সৈন্যরা বিদ্রোহীদের মোকাবিলা না করেই হয় পালিয়ে যাচ্ছে নয়তো আত্মসমর্পণ করছে।

মঙ্গলবার (১৬ জানুয়ারি) মিয়ানমারের সেনাবাহিনীর পদাতিক ব্যাটালিয়ন ৫৩৯ এর ৬০০ জন সৈন্য, ব্যাটালিয়নের কমান্ডার এবং সৈন্যদের পরিবারের সদস্যরা রাখাইন রাজ্যের কিয়াক্তাউ শহরের পতনের পর আরাকান আর্মির কাছে আত্মসমর্পণ করেছে।


আরো পড়ুন