• শুক্রবার, ০২ ডিসেম্বর ২০২২, ০৫:১৭ পূর্বাহ্ন




সরকারি বাসভবনে গরু ছেড়ে দিয়ে অভিনব প্রতিবাদ

/ ১৫ বার পঠিত
আপডেট: মঙ্গলবার, ২৭ সেপ্টেম্বর, ২০২২
সরকারি বাসভবনে গরু ছেড়ে দিয়ে অভিনব প্রতিবাদ

গবাদি পশুর আশ্রয়কেন্দ্রের জন্য বরাদ্দকৃত তহবিল প্রকাশ না করায় পশ্চিম ভারতের গুজরাটে সরকারি বাসভবনে গরু ছেড়ে দিয়ে অভিনব প্রতিবাদ করেছে গরুর আশ্রয়কেন্দ্র পরিচালনাকারী দাতব্য ট্রাস্টগুলো। এছাড়াও সরকার তহবিল দিতে ব্যর্থ হলে আসন্ন রাজ্য নির্বাচন বয়কটের ঘোষণা দিয়েছে বিক্ষোভকারীরা। সরকারি বাসভবনে গরুর ঘুরে বেড়ানোর বেশ কিছু ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বেশ সারা ফেলেছে।

গুজরাটসহ ভারতের বেশ কয়েকটি রাজ্যে চর্মরোগের প্রাদুর্ভাবের গবাদি পশুর মৃত্যু হচ্ছে।

এখন পর্যন্ত গুজরাটের ৫ হাজার ৮০০ টিরও বেশি গবাদি পশুর মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। এছাড়াও দেশটিতে মোট ১ লাখ ৭০ হাজারেরও বেশি গবাদি পশু এ রোগে আক্রান্ত হয়েছে বলে ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে।

চলতি বছর গুজরাট সরকার রাজ্যের গরু ও অন্যান্য প্রাণীদের বৃদ্ধির ও আশ্রয়ণের জন্য ৫ বিলিয়ন রুপি বরাদ্দ ঘোষণা করেছিল। তবে শেল্টার ম্যানেজাররা বলছে এই বরাদ্দের অধীনে কোনও অর্থ পাননি তারা। সরকারের কাছ থেকে প্রতারণার শিকার হয়েছেন তারা। তাদের দাবি সরকারের কাছে একাধিকবার প্রতিনিধিত্ব করা সত্ত্বেও কোনো সমাধান পাননি তারা।

গুজরাট গৌ সেবা সংঘের সাধারণ সম্পাদক বিপুল মালি বলেন, ‘উত্তরপ্রদেশ, হরিয়ানা, মধ্যপ্রদেশ, উত্তরাখণ্ডের মতো বিজেপি শাসিত রাজ্যগুলি সরকারের সমর্থন পাচ্ছে। এমনকি কংগ্রেস শাসিত রাজস্থান একটি গরুর জন্য ৫০ রুপি পাচ্ছে। তাহলে গুজরাট কেন গরু সমর্থন করতে ব্যর্থ হয়েছে?’

প্রতিবেদনে আরও বলা হয়েছে, গত কয়েকদিনে গুজরাটের বেশ কয়েকটি অংশে গবাদি পশুরা রাস্তা, স্থানীয় আদালত এবং সরকারি ভবন দখল করে নিয়েছে। এছাড়াও সরকারি দফতরে বিক্ষোভকারীরা গোমূত্র ও গোবর নিয়ে হাজির হচ্ছেন। এ ঘটনায় বানাসকাঁথা, পাটান এবং কচ্ছ জেলায় ৭০ জন বিক্ষোভকারীকে আটক করেছে পুলিশ।

গুজরাটের পশুপালন মন্ত্রী এ ঘটনার স্বীকার করে বলেন, ‘প্রশাসনিক জটিলতার’ কারণে সহায়তা বিলম্বিত হয়েছে। আশা করি আগামী এক বা দুই দিনের মধ্যে একটি ‘‘ইতিবাচক সমাধান’’ খুঁজে বের করতে পারব আমরা।

মন্ত্রীর আশ্বাসে বিক্ষোভকারীরা কর্মসূচি বন্ধ করেছে। এবং ঘোষণা দিয়েছে এ মাসের শেষের মধ্যে তাদের দাবি পূরণ না হলে বৃহত্তর আন্দোলনে নামবে তারা।

উল্লেখ্য,ভারতের সংখ্যাগরিষ্ঠ হিন্দু সম্প্রদায়ের জন্য গরু একটি পবিত্র প্রাণী এবং গুজরাট সহ 18টি রাজ্যে গরু জবাই করা অবৈধ। ২০১৭ সালে, গুজরাট তাদের গো-রক্ষা আইন কঠোর করে জানায়, যারা গরু জবাই করে তাদের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড হতে পারে।





আরো পড়ুন