• বৃহস্পতিবার, ২৬ মে ২০২২, ০১:২৯ অপরাহ্ন
শিরোনাম
২দিন আটকে রেখে টাকা না পেয়ে পিটিয়ে হাত ভেঙে কোর্টে চালান ওসিসহ ৪জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ; এলাকাবাসীর মানববন্ধন জয়পুরহাটে ভিটামিন এ প্লাস ক্যাম্পেইন উপলক্ষ্যে জেলা পর্যায়ে সাংবাদিকদের ওরিয়েন্টেশন কর্মশালা জাতীয় ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাম্পেইন ২০২২ উপলক্ষে সাংবাদিকদের ওরিয়েন্টেশন কর্মশালা অনুষ্ঠিত যাত্রাবাড়ী থেকে ২২ কেজি গাঁজাসহ ০৪ জন মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার!  নবাবগঞ্জের ভাইয়ের হাতে ভাই হত্যা মামলার প্রধান আসামী জাহাঙ্গীর কবিরাজ গ্রেফতার ময়মনসিংহে হামলার শিকার কবি সাংবাদিক শরৎ সেলিম ,থানায় অভিযোগ জয়পুরহাটে ধানকাটাকে কেন্দ্র করে কুপিয়ে যখম  প্রতিপক্ষ আতাইকুলা থানায় ৬ লক্ষ পিচ শলাকা নকল আকিজ বিড়ির পিকআপসহ গাড়ী আটক- ৩ কেরাণীগঞ্জের চাঞ্চল্যকর স্বামীর হাতে প্রবাসী স্ত্রী হত্যা মামলার আসামী স্বামী নুরুল কালির বাজারে চেয়ারম্যান ইলেকট্রনিক্স পয়েন্ট ও চেয়ারম্যান সুপার সপের রেফেল ড্র অনুষ্ঠিত

শিক্ষকের বিরুদ্ধে মাদরাসা ছাত্রকে পিটিয়ে জখমের অভিযোগ

অনলাইন ডেস্ক / ৩৫ Time View
Update : বৃহস্পতিবার, ১৭ মার্চ, ২০২২

মাদারীপুরের শহরের টি.বি ক্লিনিক রোড এলাকার আদর্শ নূরানি মাদরাসার হেফজ বিভাগের ছাত্র আব্দুল্লাহ আল নাঈম (১০) পড়ার সময় কথা বলায় পিটিয়ে মারাত্মক জখম করার অভিযোগ উঠেছে ওই মাদরাসার শিক্ষক জামিল আহম্মেদের বিরুদ্ধে। মঙ্গলবার ভোর সাড়ে ৪টার দিকে আদর্শ মাদরাসায় এ ঘটনা ঘটে।

বুধবার দুপুরে আহত ছাত্র নাঈম বাড়িতে গেলে বিষয়টি জানাজানি হয়। আহত আব্দুল্লাহ আল নাঈম কুলপদ্বি এলাকার হাবিবুর রহমান জিন্নার ছেলে।

জানা গেছে, মঙ্গলবার ভোরে মাদরাসার হেফজ বিভাগে পড়ার সময়ে দুই ছাত্রের সাথে কথা বলছিল নাঈম। এ দেখে শিক্ষক জামিল আহম্মেদ রেগে গিয়ে বাঁশের তৈরি চটি দিয়ে দুই হাতের বাহু ও তালুতে বেদম প্রহার করে। চটি দিয়ে পিটানোর ফলে হাতের বাহুতে জখম হয়ে রক্তজমাট বেধে যায় ও হাতের আঙ্গুল মারাত্মক জখম হয়। বুধবার দুপুরে মাদরাসা ছুটি হলে বাসায় যাওয়ার পরে তার মা সাজেদা বেগম ছেলের গায়ে আঘাতের চিহ্ন দেখতে পায়। ছেলের হাতের খারাপ অবস্থা দেখে সাজেদা বেগম তার ছেলে নাঈমকে চিকিৎসার জন্য মাদারীপুর সদর হাসপাতালে নিয়ে আসেন।

আব্দুল্লাহ আল নাঈমের মা সাজেদা বেগম বলেন, আমার স্বামী নাঈমকে ছোট রেখে মারা গেছে। আমার এতিম ছেলে আর ছোট একটা মেয়েকে নিয়ে বাবার বাড়িতে থাকি। খুব কষ্ট করে ছেলে-মেয়েকে মাদ্রাসায় পড়াই। আমার ছেলেটা ভীষণ শান্ত স্বভাবের। মঙ্গলবার ভোর রাতে আমার ছেলেকে মাদরাসার হুজুর জামিল আহম্মেদ চটি দিয়ে খুব মারধর করেছে। ছেলেটার বাম হাতের দুইটা আঙুল নাড়াতেও পারে না। প্রশাসনের কাছে আমি হুজুরের বিচার চাই।

মাদারীপুর সদর হাসপাতালের মেডিকেল অফিসার ডা. শাহরিয়ার শাকিল বলেন, আব্দুল্লাহ আল নাঈম নামে এক মাদ্রাসার ছাত্র চিকিৎসা নিতে আমাদের হাসপাতালে এসেছে। তার শরীরের বিভিন্ন জায়গায় আঘাতের চিহ্ন পাওয়া গিয়েছে। তার হাতে ফোলাও আছে যার জন্য এক্সেরে করতে দিয়েছি। আমরা তার চিকিৎসার ব্যবস্থা করেছি।

আদর্শ নূরানি মাদরাসায় প্রধান শিক্ষক আব্দুল আলিম বলেন, ব্যাপারটা দুঃখজনক। আমি ওই শিক্ষার্থীকে মারার ব্যাপারে শুনেছি। আমি শোনা মাত্রই ওই শিক্ষককে বলে দিয়েছে সে এখানে আর চাকরি করতে পারবে না। মাদারীপুর জেলা অতিরিক্ত পুলিশ সুপার লিমন রায় জানান, আমরা আপনার (সাংবাদিক) মাধ্যমে ব্যাপারটি জানলাম। ভুক্তভোগীর পরিবার থানায় অভিযোগ দিলে আমরা আইনানুগ ব্যবস্থা নিবো।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category