• শুক্রবার, ০২ ডিসেম্বর ২০২২, ১০:১২ অপরাহ্ন




শিশুদের মোবাইল আসক্তি বাড়ছে

/ ১৭ বার পঠিত
আপডেট: শুক্রবার, ২১ অক্টোবর, ২০২২
নিউগ বিজ্ঞপ্তি

অনলাইন ডেস্কঃ

দেশে শিশুদের মোবাইল আসক্তি দিন দিন বেড়ে চলেছে। শিশুদের শান্ত রাখা বা খাওয়ানোর জন্য অভিভাবকরাই সন্তানদের হাতে তুলে দিচ্ছেন মোবাইল ফোন। এতে শিশুরা মোবাইলে আসক্ত হয়ে পড়ছে যার প্রভাব পড়ছে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানেও। তবে বিশেষজ্ঞরা বলছেন, শিশুদের শারীরিক ও মানসিক বিকাশে ডিজিটাল ডিভাইস থেকে তাদের দূরে রাখতে হবে।

শিশু-কিশোরদের স্মার্টফোন আসক্তি নিয়ে অভিভাবকদের হিমশিম খেতে হচ্ছে। বেশিরভাগ অভিভাবকই বলছেন প্রথম দিকে খাবার খাওয়াতে বা কান্না থামাতে সন্তানকে স্মার্টফোন দিলেও এখন আসক্তি হয়ে গেছে। মোবাইল না দিলে খেতে চায় না তারা। দিনের একটি বড় সময় ব্যয় করে মোবাইলে ভিডিও দেখে বা গেম খেলে।

সিলেট নগরীর বাসিন্দা শাম্মি চৌধুরী বলেন, আমার মনে হয় আমি আমার বাচ্চার জীবনটা নষ্ট করেছি। তাকে মোবাইলে এডিক্টেড করে দিছি। এখন মোবাইল না দিলে খাবার মুখে দেয় না। একই অভিযোগ অনেক মায়ের। তারা বলেন, মোবাইল হাতে না দিলে বাচ্চারা খেতে চায় না।

সন্তানের হাতে মোবাইল তুলে দেয়ার ক্ষেত্রে অভিভাবকদের দায় দেখছেন কেউ কেউ। সেই সাথে খেলাধুলার জায়গার অভাবে আরও বেশি ঘরবন্দি হয়ে পড়ছে শিশুরা। এতে মোবাইল আসক্তির মাত্রা বাড়ছে।

সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের শিশুরোগ বিভাগের প্রধান অধ্যাপক ডা. মুজিবুর রহমান বলেন, শারীরিক ও মানসিক বিকাশে শিশুদের ডিজিটাল ডিভাইস থেকে যতটা সম্ভব দূরে রাখতে হবে। তিনি আরও বলেন, একটি শিশু যদি চার ঘণ্টা মোবাইল দেখে পড়তে বসে তবে কিন্তু সে পড়তে পারবে না কারণ তার চোখ ক্লান্ত হয়ে গেছে।

গত জুলাইয়ে মাসে প্রকাশিত জনশুমারি ও গৃহগণনার প্রাথমিক প্রতিবেদন বলছে, দেশে ৫ থেকে ১৭ বছর বয়সীদের মধ্যে নিজের ব্যবহারের জন্য মোবাইল ফোন রয়েছে ৫৫ দশমিক ৮৯ শতাংশের; যা ওই বয়সী শিশুর মোট সংখ্যার অর্ধেকের বেশি।





আরো পড়ুন