• শনিবার, ১৩ এপ্রিল ২০২৪, ১০:১০ অপরাহ্ন

কুসিক উপ- নির্বাচনে ভোট চেয়ে প্রচারণায় ব্যস্ত চার মেয়র প্রার্থীরা

/ ৬১ বার পঠিত
আপডেট: সোমবার, ২৬ ফেব্রুয়ারি, ২০২৪

কুমিল্লা প্রতিনিধি:
কুমিল্লা সিটি করপোরেশনের মেয়র পদে উপনির্বাচনে প্রচার এখনো তেমন জমে ওঠেনি।প্রতীক প্রাপ্তির পর থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে লিফলেট বিতরণ, হাত মিলানোসহ কর্মকান্ড চালালেও নগরীতে সাধারণ ভোটারদের মাঝে ভোটের যে আমেজ তা এখনো সৃষ্টি করতে পারেননি প্রার্থীরা।তবে রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা বলছেন,এ নির্বাচন শুধু একজন মেয়র পদের উপনির্বাচন।এতে ওয়ার্ডভিত্তিক কাউন্সিলর পদে নির্বাচন না থাকায় শুধু মেয়র পদে চার প্রার্থী ও তাদের কর্মীসমর্থকদের মাঝে এখন পর্যন্ত প্রচার সীমাবদ্ধ রয়েছে। রবিবার পর্যন্ত প্রতীক বরাদ্দের তিনদিন হলেও নগরীতে প্রার্থীদের পোস্টার, ব্যানারের প্রচারও তেমন জমে ওঠেনি।তবে ভোটের দিন যতই ঘনিয়ে আসবে নির্বাচনী প্রচারের সঙ্গে সাধারণ ভোটাররাও উদ্দীপ্ত হবেন তখন ভোটের মাঠের পরিবেশ আরও চাঙ্গা হয়ে ভোটের আবহ সৃষ্টি হবে। আগামী ৯ মার্চ এ সিটির উপনির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

এ দিকে রবিবার মহানগর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও নগর আওয়ামী লীগের সমর্থিত বাস প্রতীকের মেয়র প্রার্থী ও সদর আসনের এমপি আ ক ম বাহাউদ্দিন বাহারের কন্যা ডা. তাহসিন বাহার সূচনা দিনভর নগরীর বিভিন্ন এলাকায় গণসংযোগ ও লিফলেট বিতরণ করেন। এ সময় তিনি নগরের ১৮ নাম্বার ওয়ার্ড নুরপুর চৌমুহনী মেডিকেল কলেজ রোডসহ আশপাশের এলাকায় নেতাকর্মীদের নিয়ে গণসংযোগ চালানএসব গণসংযোগ ও মহানগর আওয়ামী লীগ ও অঙ্গ সংগঠনের বিপুলসংখ্যক নেতাকর্মী ও ভোটাররা অংশগ্রহণ করেন।এ সময় প্রার্থী তাহসিন বাহার সূচনা বলেন, নির্বাচিত হলে দুর্নীতিমুক্ত নগর প্রশাসন গড়ে তুলে নগরীর উন্নয়নে কাজ করব।এ জন্য তিনি সকলের কাছে দোয়া, বাস প্রতীকে ভোট ও সহযোগিতা কামনা করেন।

বিএনপির সাবেক নেতা ও সাবেক সিটি মেয়র মনিরুল হক সাক্কুর প্রচারণার রবিবার নগরীর মোগলটুলি, জিলা স্কুল রোড, নবাব ফয়জুন্নেসা স্কুল সড়ক, রাণীর বাজার, চকবাজার এলাকায় প্রচারণা করেছেন টেবিল ঘড়ি প্রতীকের প্রার্থী মনিরুল হক সাক্কু।

টেবিল ঘড়ি প্রতীকের প্রার্থী মনিরুল হক সাক্কু বলেন, প্রতিবার মানুষকে ধোকা দেওয়া যাবে না। মানুষ আমাকে প্রশ্ন করে, ভোট রক্ষা করতে পারবেন কিনা? আমি বলি, আপনারা সকাল সকাল কেন্দ্রে যাবেন। ভোট রক্ষা করার জন্য যা যা করা দরকার প্রশাসন তা করবেন।

তিনি আরো বলেন, আমি পরপর দু’বার মেয়র ছিলাম। পরিকল্পনা নিয়ে কাজ করে নগরীকে সাজিয়েছি। অসম্পূর্ণ কাজ শেষ করতে আপনারা টেবিল ঘড়ি মার্কায় ভোট দিন।

ভোটারদের প্রতি তিনি বলেন, আপনারা ভোট কেন্দ্রে আসুন। যাকে ভালো লাগে তাকে ভোট দিন। মতপ্রকাশ নাগরিক অধিকার।

মনিরুল হক সাক্কু ২০০৫ সালের ২১ সেপ্টেম্বর কুমিল্লা পৌরসভার চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন।

২০০৯ সালে পৌর মেয়র নির্বাচিত হন। ২০১২ সালের ৫ জানুয়ারি ও ২০১৭ সালের ৩০ মার্চ টানা দুই মেয়াদে কুমিল্লা সিটি করপোরেশনের মেয়র নির্বাচিত হন।নির্যাতিত বিএনপি নেতাকর্মীরা আছে আমার সাথে-কায়সার

রবিবার (২৫ ফেব্রুয়ারি) কুমিল্লা সিটি কর্পোরেশনের ২৩ ও ২৪ নম্বর ওয়ার্ডের গন্ধমতি, রামপুর, চাঙ্গিনি মোড়, গাবতলি বেবী স্ট্যান্ড, সালমানপুর, শালবন বিহার, কোটবাড়ি, টিটিসি মোড়সহ আশপাশের এলাকায় প্রচারণা শেষে এসব কথা বলেন স্বতন্ত্র ঘোড়া প্রতীকের প্রার্থী নিজাম উদ্দিন কায়সার।

এ সময় তিনি সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে বলেন,কুমিল্লার মানুষ পরিবর্তন চায়।দুর্নীতিবাজ আর ভাগবাটোয়ারাকারীদের মানুষ আর চায়না।তাই কুমিল্লার মানুষ জড়ো হয়েছে।গত তিনদিন কুমিল্লার মানুষ আমাকে দেখে রাস্তায় নেমে এসেছে। এক প্রার্থী ঘুরে ঘুরে অভিযোগ করছে। তার কাছে আছে কালো টাকার পাহাড়। এই কালো টাকার উপর ভর করে তিনি নির্বাচন করছেন।

তিনি (সাক্কু) কালো টাকা দিয়ে জনগণকে কিনতে চায়। কিন্তু আমার সাথে আছে গত ১০-১৫ বছর আওয়ামী লীগ ও তার (সাক্কু) নির্যাতনের শিকার বিএনপি নেতাকর্মীরা। তারা আমাকে অভয় দিচ্ছে তারা আমার সাথে আছে। সুতরাং কোন কালো টাকা দিয়ে এবার কুমিল্লার মানুষকে ধোকা দেয়া যাবে না।

এদিকে ২৫ ফেব্রুয়ারী কুমিল্লা সিটি কর্পোরেশন উপ-নির্বাচনে তোড়জোড় প্রচারনা চালাচ্ছেন মেয়র প্রার্থী নুর উর রহমান মাহমুদ তানিম৷ আজ সকালে নেতাকর্মীদের নিয়ে নগরীর ৬ নং ওয়ার্ডে প্রচারনা চালান হাতি প্রতীকের এই প্রার্থী ।সকালে নগরীর চকবাজার শাপলা চত্বর থেকে প্রচারণা শুরু করেন মেয়র প্রার্থী তানিম৷ হাতি মার্কার সমর্থনে নেতাকর্মীদের সাথে নিয়ে নগরীরর চকবাজার ও কাঁসারি পট্টি তে আজকে জনসংযোগ করেন ৷প্রতীক বরাদ্দের পর আজ প্রচারনার তৃতীয় দিন। জমজমাট প্রচার-প্রচারনায় সরগরম হয়ে উঠেছে নগরীর অলিগলি। নির্বাচনে বিজয় ছিনিয়ে আনতে নেতাকর্মীদের নিয়ে ভোটারদের বাড়ি বাড়ি ছুটছেন এই প্রার্থী। চষে বেড়াচ্ছেন বাসা-বাড়ি, দোকানপাট, মার্কেট ও কাঁচাবাজার৷ইভিএম নিয়ে জনমনে যে শঙ্কা রয়েছে তা উড়িয়ে দিয়ে একটিবারের মত সুযোগ চেয়ে হাতি প্রতীকের জন্য ভোট প্রার্থনা করছেন নুর উর রহমান মাহমুদ তানিম। তিনি বলেন, “সব কিছু ঠিকঠাক থাকলে ভোটারদের যে বিপুল সাড়া পাচ্ছি তাতে আমি জয়ের ব্যাপারে আশাবাদী। কুমিল্লার মানুষ এখন অনেক সচেতন। তারা তাদের মেধা দিয়ে যোগ্য প্রার্থীকেই তাদের মেয়র নির্বাচিত করবে। কুমিল্লাবাসী ভাগাভাগি আর পুরোনো দিনের সকল জঞ্জাল থেকে বেরিয়ে আসতে চায়। ৯ই মার্চ তারা ভোটের মাধ্যমেই জানান দিবে।“নগরবাসীর মধ্যে নির্বাচন কে কেন্দ্র করে একটি উৎসবমুখর পরিবেশ বিরাজ করছে। প্রার্থীর গনসংযোগের পাশাপাশি প্রতিটি ওয়ার্ডেও চলছে ধারাবাহিক প্রচারনা ৷ নেতাকর্মীরা বাড়ি বাড়ি গিয়ে হাতি প্রতীকের পক্ষে ভোট চাচ্ছেন৷ দোয়া চাচ্ছেন ভোটারদের কাছে৷।


আরো পড়ুন