• বুধবার, ২৪ এপ্রিল ২০২৪, ১২:৩৭ পূর্বাহ্ন

কুমিল্লাকে পরিকল্পিত ও সুন্দর নগরী গড়ে তুলবো: সাবেক মেয়র সাক্কু

/ ৭৬ বার পঠিত
আপডেট: শনিবার, ২৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২৪

মোঃ মাহফুজ আনোয়ার, জেলা প্রতিনিধি, কুমিল্লা:
কুমিল্লা সিটি কর্পোরেশন উপ নির্বাচনে মেয়র পদে বিএনপির বহিস্কৃত নেতা ও সাবেক মেয়র মনিরুল হক সাক্কুর প্রথম দিনের নির্বাচনী প্রচারণায় নানা পেশার মানুষের ঢল নেমেছে।শুক্রবার ‘টেবিল ঘড়ি’ প্রতিকের প্রার্থী মনিরুল হক সাক্কুু নগরীর টমছমব্রিজ
কবরস্থানে বাবা-মায়ের কবর ও পরে দারোগা বাড়ি,কালিয়াজুরী মাজার জিয়ারত শেষে প্রচারণা শুরু করেন।

দুপুর ২টায় টমছমব্রিজ এলাকা থেকে প্রচারনা শুরু করেন মনিরুল হক সাক্কু।এছাড়াও নগরীর ১০ ওয়ার্ডের পুলিশ লাইন-কান্দিরপাড় সড়কে ঝাউতলা,বাদুরতলা এলাকায় প্রচারনা করেন নেতাকর্মীরা । দলীয় নেতা-কর্মীদের পাশাপাশি নারী ও তরুন ভোটারদের ব্যাপক উপস্থিতি লক্ষ্য করা গেছে। মনিরুল হক সাক্কু ‘টেবিল ঘড়ি’ প্রতীকের সমর্থনে মুহুর্মুহু করতালি, স্লোগান আর উচ্ছ্বাসে প্রকম্পিত হয়ে ওঠে রাজপথ।

এছাড়াও আজ ২য় দিনে সকাল ১০ টায় রাজগঞ্জ ও চকবাজারে প্রচারণা চালিয়েছেন মনিরুল হক সাক্কু এবং বিকালে নগরীর কান্দিরপাড় খন্দকার হক টাওয়ার ও সাওার খান কমপ্লেক্সে গণসংযোগ করার কথা রয়েছে।

এদিকে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে সাক্কু বলেন, আমি ‘টেবিল ঘড়ি’ প্রতীক পেয়েছি । গত দুই বারের সাবেক মেয়র ছিলাম। কুমিল্লার জন্য কাজ করেছি।আমার অসমাপ্ত অনেক কাজ বাকী রয়েছে। আশাকরি জনগণ এবার আমাকে বেচে নিবেন কুমিল্লাবাসীর উন্নয়নে। আলহামদুলিল্লাহ, প্রচারনায় ব্যাপক সাড়া পাচ্ছি। যেখানে বের হচ্ছি সেখানে পরিচিত মুখ পাচ্ছি। নির্বাচিত হলে একটা পরিকল্পিক সুন্দর নগরী গড়ে তুলব। অবশ্যই সততার সাথে কাজ করব। আমি যদি সততা ও নিষ্ঠার সাথে কাজ করে অবশ্যই বাংলাদেশের সবচেয়ে সুন্দর নগরী হিসেবে গড়ে তুলব কুমিল্লা সিটিকে।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, মনিরুল হক সাক্কু ২০০৫ সালের ২১ সেপ্টেম্বর কুমিল্লা পৌরসভার চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। তখন তিনি কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক ও কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা যুবদলের সভাপতি ছিলেন। ২০০৯ সালের ২৪ নভেম্বর তিনি কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা বিএনপির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও পরবর্তী সময়ে বিএনপির কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য হন। ২০১২ সালের ৫ জানুয়ারি ও ২০১৭ সালের ৩০ মার্চ টানা দুই মেয়াদে কুমিল্লা সিটি করপোরেশনের মেয়র নির্বাচিত হন। দলীয় কার্যক্রমে অনুপস্থিত থাকায় ২০২১ সালের অক্টোবর মাসে তাকে বিএনপির কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য পদ থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়। তবে তার কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা বিএনপির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক পদ ছিল। দলের সিদ্ধান্তের বাইরে গতবারের সিটি করপোরেশন নির্বাচনে অংশ নেওয়ায় তাকে আজীবনের জন্য দল থেকে বহিষ্কার করে বিএনপি।


আরো পড়ুন