• শনিবার, ০১ অক্টোবর ২০২২, ১১:২১ পূর্বাহ্ন
171764904_843966756543169_3638091190458102178_n

মাদ্রাসার অফিস সহকারীর বিরুদ্ধে ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে মামলা

/ ৫৮ বার পঠিত
আপডেট: শনিবার, ১৩ আগস্ট, ২০২২
ধর্ষণ

মোঃ হাবিবুর রহমান, নওগাঁ প্রতিনিধিঃ

নওগাঁর মহাদেবপুরে ডাঙ্গাপাড়া দাখিল মাদ্রসার ৫ম শ্রেণির (১২) এক মাদ্রাসা ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে উঠেছে মাদ্রাসার অফিস সহকারীর মোঃ মমেনুল হক মমোর বিরুদ্ধে, মহাদেবপুর থানায় মামলা করেছেন ভুক্তভোগী ঐ ছাত্রীর মা খাতেজা বিবি। ঘটনাটি ঘটিয়েছে উপজেলার জয়পুর ডাঙ্গাপাড়া দাখিল মাদ্রাসার অফিস সহকারী ও জয়পুর ডাঙ্গাপাড়া গ্রামের মোঃ আব্দুল খালেকের ছেলে মমেনুল হক মমো।

স্থানীয় এলাকাবাসী সাব্বির হোসেন, এনামুল হক, করিম সোনার ও মিজান আহমেদ জানান, মমেনুল হক বিভিন্ন সময়ে ওই ছাত্রীকে উত্ত্যক্ত করতো। আজ সকালে ওই ছাত্রীকে মাদ্রাসার বারান্দায় দাঁড়ানো অবস্থায় পেয়ে বিভিন্ন স্পর্শকাতর স্থানে হাত দেয় এবং উত্তক্ত করে। এতে সে রাগ করে মাদ্রাসাতেই বই খাতা ফেলে বাড়িতে চলে আসে। পরে ছাত্রীটির খোঁজ খবর নেয়ার অজুহাতে দুপুর ১টার দিকে মমেনুল হক পীরপুকুর গ্রামে ওই ছাত্রীর দাদার বাড়িতে চলে যায়। সেখানে বাড়িতে কেউ না থাকায় ওই ছাত্রীর ঘরে ঢুকে দরজা লাগিয়ে দিয়ে জোরপূর্বক তাকে ধর্ষণ করে।

ছাত্রীর দাদা আজাহার আলী ,নানি হারেজা বিবি ও মা খাতেজা বলেন , দরিদ্রতার কারণে তার মা ও বাবা ঢাকার গাজীপুরে বাসা ভাড়া নিয়ে তার মা গার্মেন্টেসে চাকরি করে ও তার বাবা অটো রিকসা চালিয়ে জীবিকা নির্বাহ করে আসছে। জয়পুর ডাঙ্গাপাড়া দাখিল মাদ্রাসার সুপার মোঃ মাজেদুর রহমান এবং সভাপতি আইনুল হক বলেন, অফিস সহকারী মমেনুল হক এর বিরুদ্ধে মৌখিকভাবে এক ছাত্রীকে ধর্ষণ করার অভিযোগ শুনে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষকে অবহিত করেছি।

এ ঘটনার পর থেকে শিক্ষার্থীরা ওই দাখিল মাদ্রাসায় যাওয়া বন্ধ করে দিয়েছে। অভিযুক্ত মমেনুল হকের বাসায় গিয়ে,সেই পালাতোক থাকায় তার বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি, তবে তার স্ত্রী, জানান, ষড়যন্ত্র করা হয়েছে তার স্বামীর উপর। এ বিষয়ে মহাদেবপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (তদন্ত) আবুল কালাম বলেন, এ ঘটনায় ওই ছাত্রীর মা বাদী হয়ে জয়পুর ডাঙ্গাপাড়া দাখিল মাদ্রাসার অফিস সহকারী মোঃ মমেনুল হক মমোকে আসামী করে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে থানায় মামলা দায়ের করেছেন।


আরো পড়ুন