• বুধবার, ১৬ জুন ২০২১, ০৮:২৮ অপরাহ্ন
শিরোনাম
ত্রুটিযুক্ত নির্বাচন মেনে নেয়া হবে না, প্রয়োজনে ভোট গ্রহণ বন্ধ থাকবে: সিইসি দেশে ২৪ ঘণ্টায় করোনায় শনাক্তের হার বেড়েছে ভাঙচুরের অভিযোগে পরিমণির বিরুদ্ধে জিডি চলমান ‘বিধি নিষেধ’ আরও এক মাস বাড়ল তামাকবিরোধী প্রচারণা বেগবান করতে হবে: তথ্যমন্ত্রী হাছান মাহমুদ মাদারীপুরে অপরিকল্পিতভাবে খাল খননের ফলে রাস্তায় ভাঙ্গন, ঝুঁকিতে স্থাপনাসহ বাড়ীঘর, এলাকাবাসীর বিক্ষোভ ! কলেজছাত্র হত্যা মামলার প্রধান আসামি গ্রেপ্তার শ্রীপুর উপজেলা সাংবাদিক নির্যাতন প্রতিরোধ ৯ সদস্য বিশিষ্ট আহবায়ক কমিটি ঘোষণা মুজিববর্ষ উপলক্ষে বিএমএসএফ’র উদ্যোগে দোহারে বৃক্ষরোপণ কর্মসূচীর উদ্বোধন নিয়ামতপুরে ২০ কেজি গাঁজাসহ আটক-২

যে কারণে ২০ জানুয়ারিই শপথ নেন মার্কিন প্রেসিডেন্টরা !

নিজস্ব প্রতিবেদক / ১০৫ Time View
Update : শুক্রবার, ২২ জানুয়ারি, ২০২১

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ৪৬ তম প্রেসিডেন্ট হিসেবে বাংলাদেশ সময় আজ রাত ১১ টায় শপথ নিতে চলেছেন জো বাইডেন। এ উপলক্ষে নজিরবিহীন নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে। ক্যাপিটল হিল ও হোয়াইট হাউস চত্বরে নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তাসহ পঞ্চাশটি প্রদেশ থেকে ২৫ হাজার ন্যাশনাল গার্ড মোতায়েন রয়েছে। মার্কিন প্রেসিডেন্টের এই অভিষেক অনুষ্ঠান ঘিরে রয়েছে নানা আয়োজন।

শত প্রতিকূলতা ও হুমকি সত্ত্বেও আগেও নয় আবার পরেও নয়- আজ ২০ জানুয়ারিই অনুষ্ঠিত হচ্ছে শপথ। যুক্তরাষ্ট্রের সংবিধান অনুযায়ী দিনটিকে নির্ধারণ করা। এদিন শপথে নির্ধারিত ঠিক ৩৫টি শব্দ উচ্চারণের মধ্য দিয়েই পৃথিবীর সবচেয়ে ক্ষমতাধর এই দেশের ক্ষমতার মসনদে বসবেন। এমনটা যুগ যুগ ধরে হয়ে আসছে- যেমন আগামী ২০২৫ সালের ২০ জানুয়ারিও হবে। কিন্তু কেন এই ২০ জানুয়ারি?

মূলত এই ২০ জানুয়ারি তারিখটি নির্ধারণ করা হয়েছে মার্কিন সংবিধানে। যুক্তরাষ্ট্রের সংবিধানে যে জন্য আনা হয় ২০তম সংশোধনী। তথ্য বলছে, ১৯৩৭ সালের ২০ জানুয়ারি প্রথম কোনও মার্কিন প্রেসিডেন্ট হিসেবে শপথ নেন ফ্রাঙ্কলিন ডি রুজভেল্ট। প্রথম মেয়াদে শপথ নিয়েছিলেন ৪ মার্চ। ১৭৮৯ সালের সংবিধানের ধারাবাহিকতা মেনে তার আগের সব মার্কিন প্রেসিডেন্টই মার্চের ওই তারিখেই শপথ নিয়েছেন।

মূলত দুটি কারণে এমন সিদ্ধান্ত নেয়া হয় এবং তারিখে পরিবর্তন আসে। প্রথম কারণটি হলো, নির্বাচিত নতুন প্রেসিডেন্টের ওয়াশিংটনে এসে ক্ষমতা গ্রহণের বিষয়টি সময় সাপেক্ষ ছিলো। দ্বিতীয় কারণটি হলো ক্ষমতা হস্তান্তরের জন্য বিদায়ী প্রশাসনের কাছ থেকে নানা তথ্য নতুন প্রশাসনকে বুঝিয়ে দিতে হয়, যা একটি নির্দিষ্ট কাঠামো ও সময়ের মাধ্যমে সম্পন্ন হতে হয়।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category