• শনিবার, ১৩ এপ্রিল ২০২৪, ১০:৩৯ অপরাহ্ন

হোটেলে ডাইল, চা, ভাত- মাদকের হাট!

/ ৯১ বার পঠিত
আপডেট: রবিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২৪

স্টাফ রিপোর্টারঃ
গোমতী বাঁধের উভয় পাশে ব্যাঙ্গের ছাতার মতো কপি হাউজ, চায়ের আড্ডা,আছে ভাতের হোটেল,দোকানের সামনে গাড়ির সিরিয়াল লেগেই থাকে।

সরজমিনে দেখা যায়, কুমিল্লা আদর্শ সদরের ৫নংপাঁচথুবী ইউনিয়নের ছাওয়ালপুর গোমতীর আইল সংলগ্ন(৩টি বাড়ীর) মালিক নুর আলম ওরফে নুরুল আমিন, নামে মাত্র হোটেল,খালি চোখে ভাত,চা বিক্রি- অন্তরালে মাদক। এলাকাবাসীর দাবী,দীর্ঘ দিন যাবত ওই স্পষ্টে পাইকারি ও খুচরা মাদক বিক্রি হয়।বেশ কয়েকবার অভিযানে মাদক উদ্ধার ও গ্রেফতার হলেও ব্যবসা বন্ধ নাই।

গোমতীর চরের কৃষি ক্ষেতের পাশে বসে দিনে প্রকাশ্যেই কাস্টমারের আশা যাওয়া চলে,নুরু পরিবারের মাদক কারবার,গন্তব্যে পৌঁছাতে আছে
একাধিক সিএনজি, পিকাপ, হোন্ডা শুধু চোরাচালান বহন করে। ওই সিন্ডিকেট গোলাবাড়ীর সীমান্ত থেকে চিনি, কসমেটিক আনেন সব চুক্তি!

সম্প্রতি, চকবাজার থেকে সিএনজি’র ভর্তি ১৭কেজি গাঁজাসহ র‍্যাব-১১ হাতেনাতে আরিফ(৩৪) পিতা: নুর আলম ওরফে নুরুল আমিন, সাং: ছাওয়ালপুর, থানা: কোতয়ালী মডেল,জেলা: কুমিল্লাকে গ্রেফতার করে,আদালতের মাধ্যমে জামিনে বের হয়ে আবারও একই কারবারে।

সরজমিনে অনুসন্ধান সূত্র ধরেই ওই স্পষ্টে ঢাকা সহ বিভিন্ন এলাকা থেকে দিনরাত মাইক্রো, প্রাইভেট কার,হোন্ডার সিরিয়াল!

সরজমিনে জানা যায় যে সবাই ডাইল চা নিয়ে ব্যস্ত কেউ কেউ স্কাফ,ফেন্সিডিল, বিয়ার নিয়ে ভিতরের আসরে-পরিবেশনে নিয়োজিত নুরু মিয়ার স্ত্রী,আগে টাকা হাতে নিয়ে তারপর মাল দেয় তিনি। পুত্র আলি হোসেন ও আরিফ মাদক সিন্ডিকেট ভয়ঙ্কর কিশোর গ্যাংয়ের সদস্য।

এবিষয়ে নুর আলম ওরফে নুরুল আমিন ও তার স্ত্রী এপ্রতিবেদক কে বলেন,আমরা ছেতু ভাইয়ের সাথে কথা বলার পর মাদক ব্যবসা ছেড়ে দিচ্ছি।

৫নংপাঁচথুবী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ও আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক হাছান রাফি মজুমদার রাজু জানান,মাদকের বিরুদ্ধে যুদ্ধে সবাই এগিয়ে আসতে হবে, আগামী প্রজন্মের জন্য সুন্দর পরিবেশ নিশ্চিত করতে হবে।


আরো পড়ুন