• বৃহস্পতিবার, ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০১:৩৮ পূর্বাহ্ন

নাঙ্গলকোটে পূর্ব পুরুষের কবরস্থানের জায়গা রক্ষা করতে গিয়ে আহত বৃদ্ধ স্বামী স্ত্রী

/ ৪২ বার পঠিত
আপডেট: সোমবার, ৪ ডিসেম্বর, ২০২৩

নাঙ্গলকোট কুমিল্লা প্রতিনিধি:-
কুমিল্লার নাঙ্গলকোটে পূর্ব পুরুষের কবরস্থান রক্ষা করতে গিয়ে বৃদ্ধ আবুল খায়ের ও তার স্ত্রী জাহানারা বেগমের উপর সন্ত্রাসী হামলার অভিযোগ উঠেছে প্রভাবশালী শাহজাহান ও তার পরিবারের বিরুদ্ধে । রবিবার বিকেলে উপজেলার আদ্রা দক্ষিণ ইউপির আঁটিয়াবাড়ী গ্রামে এই ঘটনা ঘটে।


জানাযায়, কিছু দিন আগে বৃদ্ধ আবুল খায়েরের ভাই রঙ্গু মিয়ার কাছ থেকে গোপনে তাদের পূর্ব পুরুষের কবরস্থানের ২ শতক ৩০ শতাংশ জায়গা গোপনে কবলা করে নেয় একই গ্রামের মৃত নজির আহমেদের ছেলে শাহজাহান। এই কবরস্থানের জায়গায় নতুন বাড়ী করার সিদ্ধান্ত নেন শাহজাহান। এ খবর শুনে তাদের পূর্ব পুরুষের কবরস্থান রক্ষা করতে আবুল খায়ের বাধা দেয়। এ বিষয় নিয়ে স্থানীয় মেম্বার আব্দুল মান্নান সহ এলাকার গন্যমান্য ব্যাক্তিদের নিয়ে শালিশ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।


শালিশ বৈঠকে শাহজাহান কে কবরস্থানের জায়গাটি আবুল খায়েরের নামে ওয়াকফ করে দেওয়ার সিদ্ধান্ত দেন শালিশ দাররা। কিন্তু শালিশ বৈঠকের সিদ্ধান্তকে অমান্য করে রবিবার বিকেলে কবরস্থানের গাছ কেটে মাটি বরাটের কাজ শুরু করেন শাহজাহান। এসময় বৃদ্ধ আবুল খায়ের বাধা দিয়ে শালিশ দারদের অবগত করে বাড়িতে চলে যায়। এসময় প্রভাবশালী শাহজাহান তার ছেলে রুবেল, রকি, মেয়ে সালমা আক্তার ও স্ত্রী হিরণ বেগমসহ আবুল খায়ের ও তার স্ত্রী জাহানারা বেগমকে দেশীয় অস্ত্র শস্র দিয়ে পিটিয়ে আহত করেন। এ সময় স্থানীয় লোকজন তাদের উদ্ধার করে নাঙ্গলকোট উপজেলা স্বাস্থ কম্পেক্সে ভর্তি করেন এবং রাতেই আবুল খায়েরের স্ত্রী জাহানারা বেগম বাদী হয়ে নাঙ্গলকোট থানায় অভিযোগ করেন।


এবিষয়ে বৃদ্ধ আবুল খায়ের বলেন, যেখানে ঘটনা ঘটেছে সেখানে আমার মায়ের কবর। এই কবরের উপর থেকে শাহজাহান গাছ কাঁটতে থাকে এসময় আমি বাঁধা দিলে শাহজাহান ও তার দুই ছেলে রুবেল, রকি, মেয়ে সালমা ও তার স্ত্রী জাহানারা বেগম আমার উপর হামলা করে। এবিষয়ে স্থানীয় মেম্বার আব্দুল মান্নান বলেন, আমারা স্থানীয় এলাকাবাসী বসে শাহজাহান কে কবরস্থানের জায়গাটি আবুল খায়েরের নামে ওয়াকফ করে দেওয়ার সিদ্ধান্ত প্রদান করি কিন্তু শাহজাহান আমাদের সিদ্ধান্ত না মেনে এমন ঘটনা ঘটানো তার উচিৎ হয়নি।

এবিষয়ে নাঙ্গলকোট থানার ওসি দেবাশীষ চৌধুরী বলেন, জাতীয় জরুরি সেবা ৯৯৯ নাম্বারের মাধ্যমে খবর পেয়ে পুলিশ তাৎক্ষণিক ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। অভিযোগের বৃত্তিতে তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।


আরো পড়ুন