• শুক্রবার, ০৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ১২:০৫ পূর্বাহ্ন

দোহারে কাজীরচরে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ধর্ষণ

/ ৬৮ বার পঠিত
আপডেট: বুধবার, ২৫ জানুয়ারি, ২০২৩

দোহার (ঢাকা) প্রতিনিধি:
ঢাকা দোহার উপজেলার কাজীরচর এলাকায় আব্দুল জলিলের ছেলে মো: সুজন বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে একটি মেয়েকে ধর্ষণ করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া যায়। সরেজমিনে গিয়ে জানা যায় যে, ছদ্দ নাম চন্দা তার বাড়ি ফরিদপুরে। মেয়েটিকে বিয়ের কথা বলে রাতে ঢাকা থেকে বাড়িতে নিয়ে আসে মো: সুজন। বিয়ে না করে তাহার সাথে অনৈতিক কাজে লিপ্ত হন। এক পর্যায় আশে পাশের লোকজন বিষয়টি জানতে পারলে সুজনের বাবাকে জিজ্ঞেস করলে তার বাবা ও মা দুইজনেই বলে এটা আমার ছেলের বউ। পরে এলাকাবাসী সঠিক তথ্য জানতে চাইলে, ছেলের বাবা আব্দুল জলিল প্রভাবশালী এক নেতা ও সংবাদকর্মীর পরিচয় দেন। জানান যায় যে ঐ সংবাকর্মীর বাড়ি নারিশা ধুপা বাড়ি মাঠ সংলগ্ন তার নাম আতাউর রহমান সানি, সুজন তার ভাগিনা। তিনি এবিষয়ে এলাকাবাসীদের উচ্চস্বরে চুপ থাকতে বলেন। বিষয়টি জানাযায় এলাকাবাসীর কাছ থেকে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক ব্যাক্তি বলেন, সুজনের মামা দোহারের খুব বড় সাংবাদিক লোকাল সাপ্তাহিক নব বাংলা – জাগ্রত জনতা পত্রিকার ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক। এই বলে সবাইকে ভয় দেখিয়ে রেখেছে এবং বিষয়টি থানার মিমাংসা করা হবে ইতিমধ্যে থানার সাথে দেনদরবার হয়ে গেছে। মাদকসম্রাট আলম বাবুর্চি মেয়েটিকে হেফাজতে নিয়ে রেখেছে বলে জানা যায়।

এবিষয়ে আলম বাবুর্চি বলেন, মেয়েটি আমাদের হেফাজতে রয়েছে। সাংবাদিক আতাউরের ভাগিনা ধর্ষক আপাতত বরিশালে গা ঢাকা দিয়ে আছে। আমরা খবর দিয়েছি আসতেছে বিয়ে পড়িয়ে দিব, থানা এ ব্যাপারে দায়িত্ব নিয়েছে।

এবিষয়ে দোহার থানার উপ-পরিদর্শক এসআই সুলতান মাহমুদ কে জিজ্ঞাসা করলে তিনি বলেন, আমি একটি শালিশে আছি এ ব্যাপারে পরে কথা বলবো।


আরো পড়ুন