• বুধবার, ০৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ০৬:৩৬ পূর্বাহ্ন

আখাউড়ায় প্রভাবশালীদের বাড়ির নোংরা পানিতে সড়ক সয়লাব

/ ১৯ বার পঠিত
আপডেট: বুধবার, ২৫ জানুয়ারি, ২০২৩

প্রথম দেখায় জায়গাটিকে সড়ক বলে বোঝাই দায়। নোংরা পানি-কাদায় একাকার হয়ে আছে শতাধিক পরিবারের চলার পথটি। কয়েকমাস ধরে এমন ভোগান্তিতে আছেন ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়া উপজেলার ধাতুরপহেলা গ্রামের কয়েক শ’ মানুষ। চলার পথের এ অবস্থার কারণে তাদের পরিবারের ছেলে-মেয়েদের বিয়েও ভেঙে যায় বলে জানিয়েছেন কয়েকজন ভুক্তভোগী।

গ্রামবাসীদের অভিযোগ, প্রভাবশালী কয়েকটি পরিবারের বাড়ির বাথরুমের নোংরা পানি সরাসরি পড়ছে সড়কটিতে। ফলে দীর্ঘদিন ধরে জলাবদ্ধতা দেখা দিয়েছে সেখানে। ময়লা পানির দুর্গন্ধে এ পথ দিয়ে যাতায়াত করা এখন কষ্টকর। ইট ফেলে হাঁটার ব্যবস্থা করেছেন ভুক্তভোগীরা। আর এভাবে চলাচল করতে গিয়ে পা পিছলে পড়ে প্রায়ই দুর্ঘটনা ঘটছে।

এক ভুক্তভোগী বলেন, মোগড়া ইউনিয়নের ৩ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ সভাপতি হাবিবুর রহমানের গোয়াল থেকে প্রতিদিন গরুর বর্জ্য মেশানো পানি সরাসরি এখানে পড়ে। এ ছাড়া ভুট্টো মিয়া, আমির হোসেন, সেলিম মেম্বার, নাজির মিয়া, হামদু মিয়া, বিল্লাল, আনার, হেলাল, শামিম ও মোতালিব মিয়ার বাড়ির শৌচাগারের নোংরা পানি ও কলতলার পানিও উপচে আসে এ পথে। তবে তারা প্রভাবশালী হওয়ায় প্রতিবাদ করতে পারছেন না।

আনু মিয়া নামের এক ভুক্তভোগী বলেন, আমার মেয়ের বিয়ের জন্য পাত্রপক্ষের লোকজন এ পথে আসতে না পারায় আমাকে লজ্জায় পড়তে হয়েছে। শুধু তাই নয়, কিছুদিন আগে তার এক সন্তানও নোংরা পানির কারণে অসুস্থ হয়ে যায়।

হাবিবুর রহমান বিষয়টি স্বীকার করে বলেন, শুধু আমার বাড়ির গোয়ালের পানিই নয়, আরও কয়েকটি পরিবারের পানি রাস্তায় পড়ে। তবে মানুষ চলাচলের জন্য রাস্তাটি উপযোগী করতে ব্যবস্থা নেওয়ার প্রতিশ্রুতি দেন।

মোগড়া ইউনিয়ন পরিষদের ৩ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য মো. আলমগীর হোসেন বলেন, কয়েকটি পরিবারের ময়লা পানির কারণে শতাধিক পরিবার ওই পথ দিয়ে চলাচল করতে পারছে না। বিষয়টি চেয়ারম্যানও জানেন। তিনি দ্রুতই উভয়পক্ষকে ডাকবেন।

ইউপি চেয়ারম্যান মো. আব্দুল মতিন বলেন, রাস্তায় কেউ প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করতে পারবে না। এটা সম্পূর্ণ বেআইনি। সবার সঙ্গে আলোচনা করে দ্রুত বিষয়টি সমাধানের আশ্বাস দেন তিনি।


আরো পড়ুন