• শুক্রবার, ২৭ নভেম্বর ২০২০, ০৫:২১ অপরাহ্ন
Headline
করোনা ডিজাস্টার ম্যানেজমেন্ট নিয়ে রিসার্চ হলে শেখ হাসিনার নাম সেখানে লেখা হবে: আ ক ম বাহাউদ্দীন বাহার গলাচিপার আমখোলায় বাস ও অটোরিকশার মুখোমুখি সংঘর্ষ, নিহত ১ মৃত ব্যক্তির পরিচয় পেতে শেয়ার করুন! কৃষি পুনর্বাসন ও প্রণোদনা কর্মসূচিতে কৃষকদের মাঝে বিনামূল্যে বীজ ও সার বিতরণ। উজিরপুরে দক্ষিণ আহমেদ আলী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে নব নির্মিত ভবন উদ্বোধ! “টুঙ্গিপাড়া বঙ্গবন্ধুর সমাধি’তে শ্রদ্ধাঞ্জলি জানান উত্তরা পূর্বথানা সেচ্ছাসেবক লীগ” পলাশ বাড়ীতে সরকারী খাদ্য ধান ও চাউল ক্রয়ের মূল্য নির্ধারণ, উদ্বোধন অনুষ্ঠান। রংপুরে  সিন্ডিকেটের নিয়ন্ত্রণে থাকা অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ,সড়ক প্রশস্তকরণ ও ড্রেন পুন:নির্মাণের দাবিতে “ঝালকাঠি নাগরিক ফোরামের উদ্যোগে করোনারোধে মাক্স ও লিফলেট বিতরণ” মালিকানাধীন ভূমির অধিকার ফিরে পেতে গৃহবধূর সংবাদ সম্মেলন! সাংবাদিকদের দাবী ও অধিকার রক্ষায় ১৪ দফার বিকল্প নেই: বিএমএসএফ

সারা দেশ দেখলো পিটিয়ে মারা হল, অথচ পুলিশ চার্জশিট দিল হৃদ্‌রোগে মৃত্যু তবরেজ আনসারির!!

Reporter Name / ৪৩ Time View
Update : মঙ্গলবার, ২৬ নভেম্বর, ২০১৯

অনলাইন ডেস্ক:: গণপিটুনি নিয়ে হঠাৎ করেই নড়েচড়ে বসেছে গোটা দেশ। তার সবথেকে বড় কারণ সম্ভবত ঝাড়খণ্ডে তবরেজ আনসারি নামক এক ২৪ বছরের মুসলিম যুবকের গণপিটুনিতে মৃত্যু। এ বছরের ১৭ জুন ঝাড়খণ্ডের সারাইকেলা-খারওয়ানে আরও দুই যুবককে সঙ্গে নিয়ে মোটরসাইকেল চুরি করছিলেন এই সন্দেহে তাবরেজ আনসারিকে কয়েক ঘন্টা ধরে বেধড়ক মারধর করে উত্তেজিত জনতা। মারধরের পাশাপাশি ওই যুবককে “জয় শ্রী রাম” জপ করতেও বাধ্য করা হয় বলে অভিযোগ। গণপিটুনিতে মারাত্মকভাবে আহত হওয়ার চার দিন পরে ২২ শে জুন একটি হাসপাতালে মারা যান তাবরেজ আনসারি। ঘটনাটির কথা বিস্তারিত ভাবে তুলে ধরেন প্রত্যক্ষদর্শীরা। তদন্তের চার্জশিটে পুলিশ কোনও খুনের মামলা দায়ের করেনি, যা নিয়ে বিস্মিত হয়েছেন অনেকেই। হৃদ্‌রোগে মৃত্যু তবরেজ আনসারির এটাই পুলিশের হাস্যকর অভিমত।

এই চার্জশিটকে চ্যালেঞ্জ করে তবরেজের পক্ষের আইনজীবী আলতাফ হুসেন আদালতে একটি প্রতিবাদ আবেদন (পিটিশন) দাখিল করেন। সংবাদমাধ্যমের তথ্য অনুযায়ী, পুলিশের চার্জশিটে ভারতীয় দণ্ডবিধির ১৪৭, ১৪৯, ৩৪১, ৩৪২, ৩২৩, ৩২৫, ৩০৪ এবং ২১৫এ ধারায় মামলা করা হয়েছে, যার মধ্যে দাঙ্গা, বেআইনি জমায়েত, অন্যায়ভাবে আটকে রাখা, ইচ্ছাকৃতভাবে ধর্মীয় ভাবাবেগে আঘাত করার মতো অপরাধ তালিকাভুক্ত হয়েছে। কিন্তু নেই খুনের উল্লেখ! তবরেজের পক্ষের আইনজীবী আলতাফ হুসেন বলছেন, ‘আমরা শুনলাম মৃত্যুর কারণ হিসেবে আচমকা হৃদ্‌রোগে আক্রান্ত হওয়ার কথা বলা হয়েছে। কিন্তু ওর মাথায় বড় ক্ষতচিহ্ন ছিল। মারের চেটে খুলি ফেটে গিয়েছিল তবরেজের। পুলিশ কী করে বলতে পারে মৃত্যুর কারণ শুধুমাত্র হৃদ্‌রোগ?’

এই মামলার তদন্তকারী অফিসার আর নারায়ণ অবশ্য বলছেন, তাঁরা একজন নয়, বরং দু’জন চিকিৎসকের পরামর্শ নিয়েই এই সিদ্ধান্তে এসেছেন। সেরাইকেলা-খারওয়ানের ডেপুটি আনজানেউল্লু ডডে’র নেতৃত্বাধীন তিন সদস্যের কমিটি বসানো হয়েছিল তবরেজের মৃত্যুর প্রকৃত কারণ খতিয়ে দেখতে। ডডে জানিয়েছিলেন, পুলিশ দেরি করে ঘটনাস্থলে পৌঁছনোয় মৃতের খুলির পরীক্ষা সঠিকভাবে করতে পারেননি চিকিৎসকরা। আর নারায়ণ অবশ্য বলছেন, ‘আমরা ওকে সেরাইকেলার সদর হাসপাতালে নিয়ে গেছিলাম। তখন পরিস্থিতি দেখে মনে হয়নি ও আচমকা মারা যাবে। হ্যাঁ, ওর সিটি স্ক্যান করা হয়নি, কিন্তু এটা তো দিল্লি নয়, যে সবরকম সুযোগ সুবিধা থাকবে। এখন, মৃত্যুর কারণ হৃদ্‌রোগ হওয়ায় আমরা খুনের মামলা দায়ের করতে পারি না।’ আইনজীবী আলতাফ অবশ্য বলছেন, দোষীদের রক্ষা করতেই পুলিশ এমন চার্জশিট পেশ করেছে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category