• রবিবার, ০৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ১১:৫১ অপরাহ্ন

বিএনপি অফিসের সামনে ককটেল বিস্ফোরণ নিয়ে যা বললেন রিজভী

/ ৬০ বার পঠিত
আপডেট: রবিবার, ৪ ডিসেম্বর, ২০২২

বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী অভিযোগ করেছেন, ‘নয়াপল্টনে শান্তিপূর্ণ গণসমাবেশকে বানচাল করতেই সন্ধ্যায় পার্টি অফিসের সামনে ককটেল বিস্ফোরণ ঘটানো হয়েছে। তবে ১০ ডিসেম্বর নিয়ে যতই নীলনকশা করা হোক বিএনপি জনগণকে সঙ্গে নিয়ে নয়াপল্টনের গণসমাবেশকে সাফল্যমণ্ডিত করতে দৃঢ়প্রতিজ্ঞ। শনিবার রাতে রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক জরুরি সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন।

রিজভী বলেন, ‘শনিবার মাগরিবের পরপরই নয়াপল্টন বিএনপি কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে ককটেল বিস্ফোরণ ঘটায় দুষ্কৃতকারীরা। এটি আওয়ামী সরকারের নির্দেশিত সংস্থাগুলোর যৌথ প্রযোজনা। ১০ ডিসেম্বর নয়াপল্টন বিএনপি কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে অনুষ্ঠিতব্য গণসমাবেশকে বানচাল করার জন্য পুলিশের একটা মাস্টারপ্ল্যান।’

তিনি বলেন, ‘স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সাংবাদিকদের জানিয়েছেন- নয়াপল্টনে যারা জমায়েত করবে তাদের গ্রেফতার করা হবে। সুতরাং এ গ্রেফতারের প্রেক্ষাপট তৈরি করার জন্যই এই ককটেল বিস্ফোরণ ঘটানো হয়েছে এবং কয়েক দিন ধরে নারায়ণগঞ্জ ও মুন্সীগঞ্জে ককটেল বিস্ফোরণ এবং আগুন সন্ত্রাসের সূত্রপাত করা হয়েছে। আওয়ামী সরকার টিকে থাকার জন্য মরণ কামড় দিতে চাচ্ছে; কিন্তু ক্ষমতাসীন গোষ্ঠী মানুষের মনের কথা উপলব্ধি করতে পারছে না। জনগণ এখন দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করে- শেখ হাসিনার সময় শেষ, রক্ষা পাবে বাংলাদেশ।’

বিএনপির এই নেতা বলেন, ‘পুলিশের আইজি বলেছেন- বিএনপিকে যেখানে অনুমতি দেওয়া হয়েছে সেখানেই সমাবেশ করতে হবে। অর্থাৎ পুলিশপ্রধান আওয়ামী চেতনায় উদ্বুদ্ধ হয়েই কথাবার্তা বলছেন। তিনি কোনো ন্যায়নীতি পরোয়া করছেন না। নিষ্ঠুর কর্তৃত্ববাদী আওয়ামী দুঃশাসনের সেবক হিসেবে তিনি কাজ করছেন। সেজন্য নয়াপল্টন বিএনপি কেন্দ্রীয় অফিসের সামনে পরিকল্পিত ককটেল বিস্ফোরণ ঘটিয়ে গণগ্রেফতারের অভিযান চালানো হচ্ছে।


আরো পড়ুন