• শুক্রবার, ০২ ডিসেম্বর ২০২২, ০৫:৩২ পূর্বাহ্ন




বর্ণাঢ্য আয়োজনে ত্রিশালে ন্যাশনাল ক্যাম্পাস জার্নালিজম ফেস্ট-২০২২ অনুষ্ঠিত

/ ৩১ বার পঠিত
আপডেট: মঙ্গলবার, ২২ নভেম্বর, ২০২২
03

ত্রিশাল (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধিঃ
দেশের বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ের সাংবাদিকদের অংশগ্রহণে জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ে দুই দিনব্যাপী ন্যাশনাল ক্যাম্পাস জার্নালিজম ফেস্ট-২০২২ উদ্বোধন করা হয়েছে। জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয় প্রেসক্লাব আয়োজিত দুইদিন ব্যাপী এই উৎসবের আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের সাংস্কৃতিক বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী কে. এম. খালিদ।


সোমবার (২১ নভেম্বর) সকাল সাড়ে ১০টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় লাইব্রেরি ভবনের সামনে পায়রা ও বেলুন উড়িয়ে উৎসবের উদ্বোধন ঘোষণা করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. সৌমিত্র শেখর। এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার কৃষিবিদ ড. হুমায়ুন কবীর, ত্রিশাল পৌরসভার মেয়র এবিএম আনিছুজ্জামান, বিশ্ববিদ্যালয় প্রেসক্লাবের সভাপতি নিহার সরকার অংকুর সহ দেশের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের অংশগ্রহণকারী সংবাদকর্মীরা।


এরপর লাইব্রেরি ভবন থেকে একটি র‌্যালী শুরু হয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের গুরুত্বপূর্ণ সড়কসমূহ প্রদক্ষিণ করে একইস্থানে শেষ হয়। সকাল ১১টায় কেন্দ্রীয় লাইব্রেরির ৩য় তলায় সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক সিফাত শাহরিয়ার প্রিয়ানের সঞ্চালনায় একটি আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। নজরুল বিশ্ববিদ্যালয় প্রেসক্লাবের সভাপতি নিহার সরকার অংকুরের সভাপতিত্বে সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী কে. এম. খালিদ বলেন, সাংবাদিকদের বন্ধু না থাকলেও শত্রুর অভাব নাই, কোনো নিউজ পক্ষে গেলে সাংবাদিক ভালো, আর বিপক্ষে গেলে সাংবাদিক ভালো না।এই মানসিকতা থেকে বেরিয়ে আসতে হবে। সাংবাদিকরা আছেন বলে আমরা সমাজে এখনো সচেতন ও ভালোভাবে থাকতে পারছি। বিশেষ করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের কারণে এখন সবাই অনেক বেশি সচেতন। না হলে যেকোন সময় ভাইরাল হয়ে যাওয়ার ভয় থাকে।


সভায় জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. সৌমিত্র শেখর বলেন, সংবাদপত্র আমাদের রাষ্ট্র পরিচালনার ক্ষেত্রে চতুর্থ স্তম্ব হিসেবে কাজ করে। তবে এখন শুধু সংবাদপত্র নয় বরং মিডিয়া হয়ে গেছে। এখানে ইলেকট্রনিক মাধ্যম, ভার্চুয়াল মাধ্যম এমনকি ওটিটি নামে একটি মাধ্যমও যুক্ত হয়ে গেছে। যার মধ্যে দিয়ে এখন সংবাদ বা তথ্যের আদান-প্রদান দেখতে পাই। তাই আজকে যাদের নিয়ে এই সম্মেলন-আয়োজনটি হয়তো ছোট কিন্তু এর ব্যাপ্তি অনেক বেশি। এই ক্যাম্পাসে আজ দূর দূরান্ত থেকে নানা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিনিধিরা এসেছে।এটা অত্যন্ত গর্বের। এই গর্বকে আমরা লালন করি। সাংবাদিকদের সঙ্গে সম্পর্কের মূল্যায়ন করতে গিয়ে ব্যক্তিগত অভিজ্ঞতা তুলে ধরে উপাচার্য বলেন, সাংবাদিকদের কোন বন্ধু নেই বলে একটি কথার প্রচলন আছে। আমি বলি সাংবাদিকদের বন্ধু করতে নেই। অর্থাৎ সাংবাদিকদের বন্ধু করলে যে সংকটটি হয় সেটি হলো একটি পর্যায়ে গিয়ে তার পেশার কারণে এমন সংবাদ প্রকাশ করে যার দায় এড়ানো যায় না। নির্দিষ্ট সাংবাদিকদের বন্ধু না করে সমস্ত সাংবাদিকদের সঙ্গে বন্ধুত্ব থাকা উচিত। আমার বন্ধুত্বের যে উদার জমিন সেখানে পুরো সংবাদক্ষেত্রকে জায়গা দিতে চাই। আমি এর প্রতিদানও পেয়েছি।

এসময় নজরুল বিশ্ববিদ্যালয় প্রেসক্লাবের প্রকাশনা ‘কলম’ এর বিশেষ সংখ্যা (৩য়) মোড়ক করা হয়। উপস্থিত অতিথিগন মোড়ক উন্মোচন করেন। এছাড়াও ‘মুক্তিযুদ্ধা সম্মাননা’ প্রদান করা হয় ত্রিশাল উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ১১ নং সেক্টরে মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণ করা বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব আব্দুল মতিন সরকারকে। আয়োজক সংগঠনের ৪ উপদেষ্টাকেও সম্মাননা প্রদান করা হয়।


অনুষ্ঠানে ‘অনুসন্ধানী সাংবাদিকতা’ এবং ‘ফিচার ও উন্নয়ন সাংবাদিকতা’ বিভাগে মনোনীত সেরা প্রতিবেদক- ২০২২ প্রদান করা হয়। ৩ জন করে মোট ৬ জনকে সম্মাননা প্রদান করা হবে। তারা হলেন- অনুসন্ধানী সাংবাদিকতায় ১ম যায়েদ হোসেন মিশু, ২য় মো. নাহিদ হাসান, ৩য় মো. রায়হানুল ইসলাম সৈকত এবং ফিচার ও উন্নয়ন সাংবাদিকতায় ১ম মুতাছিম বিল্লাহ রিয়াদ, ২য় ইভান চৌধুরী, ৩য় সুপর্না রহমান টুছি। পরবর্তীতে সন্ধ্যা সাড়ে ৬ টায় ‘তীর হারা এই ঢেউয়ের সাগর পারি দেব রে’ শিরোনামে বিশ্ববিদ্যালয়ের জয়ধ্বনি মঞ্চে অনুষ্ঠিত হয় মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।





আরো পড়ুন