• মঙ্গলবার, ২৯ নভেম্বর ২০২২, ১১:০৯ অপরাহ্ন




রুশো ঝড়ে উড়ে গেল ভারত

/ ১৪ বার পঠিত
আপডেট: বুধবার, ৫ অক্টোবর, ২০২২
রুশো ঝড়ে উড়ে গেল ভারত

ভারতের বিপক্ষে টি২০ সিরিজের প্রথম দুই ম্যাচেই মেরেছিলেন ‘ডাক’। সেই ক্ষোভ থেকেই কি-না, সিরিজের শেষ ম্যাচে ভারতীয় বোলারদের তুলোধোনা করলেন রাইলি রুশো। করলেন ঝড়ো সেঞ্চুরি। তার সেঞ্চুরিতেই আজ মঙ্গলবার ভারতকে ৪৯ রানের বড় ব্যবধানে হারিয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকা।

রুশোর প্রথম আন্তর্জাতিক টি২০ সেঞ্চুরির কল্যাণে হোয়াইটওয়াশও এড়াল দক্ষিণ আফ্রিকা। তিন ম্যাচের টি২০ সিরিজ শেষ হলো ২-১ ব্যবধানে। ইন্দোরের হোলকার ক্রিকেট স্টেডিয়ামে টস হেরে ব্যাট করতে নেমে দক্ষিণ আফ্রিকা মাত্র ৩ উইকেট হারিয়ে স্কোরবোর্ডে তোলে ২২৭ রানের বিশাল সংগ্রহ। ৪৮ বলে সেঞ্চুরি করা রুশো ঠিক ১০০ রানে থাকেন অপরাজিত।

সেই লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে ভারত ৪ রানেই হারায় ২ উইকেট। এরপর দীনেশ কার্তিক পাল্টা আক্রমণে প্রতিরোধ গড়ে তুললেও বাকিরা ছিলেন ব্যর্থ। ফলে নির্ধারিত ওভার শেষ হওয়ার ৯ বল আগেই ১৭৮ রানে অলআউট হয় ভারত।

সিরিজ নিশ্চিত বিধায় দক্ষিণ আফ্রিকার শেষ ম্যাচে অনেক পরীক্ষা-নিরিক্ষা করতে নামে ভারত। তবে তাদের সেই প্রচেষ্টা সফল হয়নি। দলটির চার পেসারই বেদম পিটুনি খেয়েছেন। প্রত্যেকেই ওভার প্রতি রান দিয়েছেন ১১-এর বেশি করে। এরপর ব্যাটাররাও ঠিকঠাক পারলেন না জ্বলে উঠতে। সেই সুযোগে ধবলধোলাইয়ের হাত থেকে রক্ষা পায় প্রোটিয়ারা।

রান তাড়া করতে নেমে ভারত উইকেট হারায় ইনিংসের দ্বিতীয় বলেই। কাগিসো রাবাদার বলে শূন্য রানে বোল্ড হয়ে সাজঘরে ফেরেন রোহিত শর্মা। পরের ওভারে বিরাট কোহলির জায়গায় একাদশে ঢোকা শ্রেয়াস আইয়ারও উইকেট দিয়ে আসেন। ১ রান করে ওয়েন পার্নেলের বলে এলবিডব্লিউ হন তিনি।

তৃতীয় উইকেট জুটিতে ঋষভ পন্থ এবং দীনেশ কার্তিক পাল্টা আক্রমণ শুরু করেন। তবে বেশিক্ষণ টেকেনি এ জুটিও। পন্থ ১৪ বলে ২৭ করে ফিরতে ভাঙে এ জুটি। এরপর কার্তিকও ফিরে গেলে শেষ হয় ভারতের জয়ের আশা। কেশভ মহারাজের বলে বোল্ড হওয়ার আগে কার্তিকের ব্যাট থেকে আসে ২১ বলে ৪৬ রান।

বাকিরা এরপর স্রেফ যাওয়া-আসার মিছিলে ছিলেন। হর্ষল প্যাটেলের ১৭, দীপক চাহারের ৩১ এবং উমেশ যাদবের ২০ রান শেষে কেবল ভারতের হারের ব্যবধান কমিয়েছে। সফরকারীদের পক্ষে সর্বোচ্চ ৩ উইকেট নিয়েছেন ডোয়াইন প্রিটোরিয়াস। দুটি করে উইকেট পকেটে পুরেছেন পার্নেল, এনগিদি এবং মহারাজ।

হোলকারে আগে ব্যাট করতে নামা দক্ষিণ আফ্রিকার হয়ে এদিনও ব্যর্থ অধিনায়ক টেম্বা বাভুমা। প্রথম দুই ম্যাচে কোনো রান না করা বাভুমা আজ ৩ রান করে ফেরেন উমেশ যাদবের বলে রোহিত শর্মাকে ক্যাচ দিয়ে। দ্বিতীয় উইকেট জুটিতে শক্ত ভিত পায় প্রোটিয়ারা। কুইন্টন ডি কক এবং রাইলি রুশো মিলে গড়েন ৯০ রানের জুটি।

ডি কক টানা দ্বিতীয় ফিফটি করে ৬৮ রানে রানআউট হলে ভাঙে এ জুটি। এই কিপার-ব্যাটার ফিরতেই ঝড় তোলেন রুশো। তৃতীয় উইকেটে ত্রিস্তান স্টাভসকে নিয়ে মাত্র ৪৩ বলে তিনি স্কোরবোর্ডে তোলেন আরও ৮৭ রান। স্টাভস শেষ ওভারের দ্বিতীয় বলে চাহারকে উইকেট দেওয়ার আগে করেন ২৩ রান।

ইনিংসের শেষ ওভারের প্রথম বলেই অবশ্য সেঞ্চুরি তুলে নেন রুশো। মাত্র ৪৮ বলে ৭ চার এবং ৮ ছক্কার মারে সেঞ্চুরিটি সাজান এই টপ অর্ডার ব্যাটার। চাহারের শেষ পাঁচ (একটি নো) বল খেলেন আগের ম্যাচের সেঞ্চুরিয়ান ডেভিড মিলার। এই ৫ বলে তিনটি ছক্কা হাঁকান মিলার। ৫ বলে তার ১৮ রানের ঝড়ো ক্যামিওতেই শেষ পর্যন্ত ২২৭ রানের সংগ্রহ দাঁড় করায় প্রোটিয়ারা।





আরো পড়ুন