• মঙ্গলবার, ২৯ নভেম্বর ২০২২, ১১:০১ অপরাহ্ন




স্বামীর লাশের প্রতিক্ষায় নববধূ   

/ ১০ বার পঠিত
আপডেট: বুধবার, ২৮ সেপ্টেম্বর, ২০২২
নববধূ

পঞ্চগড়ের ময়দানদিঘী এলাকার নববধূ বন্যা রানির সিঁথিতে এখনও রয়েছে সিঁদুর। শুধু পাশে নেই প্রাণের মানুষটি। বিয়ের মাত্র দেড় মাসের মাথায় করতোয়ায় নৌকা ডুবিতে স্বামী হিমালয়কে হারিয়েছেন তিনি। নৌকাডুবির তিন দিন পেরিয়ে গেলেও এখনো খোঁজ মেলেনি প্রিয়জনের।

তাইতো তার মুখের ভাষা শুধুই কান্না।  

তার মতো করতোয়ার পাড়ে অপেক্ষার প্রহর গুনছেন নিখোঁজদের পরিবারের স্বজনরা। প্রিয়জন জীবিত ফিরে আসবে সে আশা ক্ষিণ হলেও, শেষবারের মতো পরিবারের সদস্যের মুখ দেখতে চান তারা। স্বজনদের তাদের খোঁজ না পাওয়ায় প্রশাসনের গাফিলতিকে দায়ী করেছেন।  

প্রশাসন বলছে, মঙ্গলবার পর্যন্ত উদ্ধার হয়েছে ৬৯ মরদেহ। যা স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।  

মাড়েয়া এলাকার উজ্জ্বল কুমার। মা-বাবাসহ একইসঙ্গে হারিয়েছেন পরিবারের ছয় সদস্য। চারজনের মরদেহ পেলেও এখনো পাননি দুজনকে। একই অবস্থা রুপালী রানি, বীরেন্দ্র নাথসহ অনেকের। শেষ বারের মতো প্রিয়জনকে দেখতে চান তারা।

পরিবারের সদস্যের দাবি, শুধু আউলিয়া ঘাটে নয় করতোয়া নদীর বিভিন্ন স্থানে ডুবুরি দল নামালে দ্রুত উদ্ধার হবেন তাদের স্বজনরা।  

দিনাজপুর ফায়ার সার্ভিসের সহকারী পরিচালক মঞ্জিল হক জানান, উদ্ধার কাজে কোনো গাফিলতি নেই তাদের। স্থানীয়দের সঙ্গে নিয়ে ১২টি ইউনিট কাজ করছে দিনরাত। একজন ব্যক্তি নিখোঁজ থাকলেও অভিযান চলবে।  

পঞ্চগড়ের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক দীপঙ্কর রায়ও একজন ব্যক্তি নিখোঁজ থাকা পর্যন্ত অভিযান চালানো হবে বলে জানিয়েছেন।  

স্বজনহারাদের গগণবিদারী আহাজারিতে শোকের ছায়া নেমেছে পুরো এলাকায়।





আরো পড়ুন