• সোমবার, ২৮ নভেম্বর ২০২২, ০৬:৫৯ পূর্বাহ্ন
171764904_843966756543169_3638091190458102178_n

হ্যাটট্রিক চ্যাম্পিয়ন বাংলাদেশের নারীরা 

/ ৩৯ বার পঠিত
আপডেট: সোমবার, ২৬ সেপ্টেম্বর, ২০২২
হ্যাটট্রিক চ্যাম্পিয়ন বাংলাদেশের নারীরা

আয়ারল্যান্ডকে হারিয়ে টি২০ বিশ্বকাপ বাছাইপর্বের হ্যাটট্রিক চ্যাম্পিয়ন হওয়ার গৌরব অর্জন করল বাংলাদেশ নারী ক্রিকেট দল। আজ আবুধাবিতে আইরিশদের ৭ রানে হারিয়ে টানা তৃতীয়বার বাছাইপর্বের সেরা হয়ে টি২০ বিশ্বকাপ নিশ্চিত করলেন নিগার-সালমারা।

পুরো বাছাইপর্বে বাংলাদেশের একমাত্র চ্যালেঞ্জ ছিল আয়ারল্যান্ড নারী দল। গ্রুপ পর্বের ম্যাচে সহজে দলটিকে হারানো গেলেও, ফাইনাল অত সোজা হলো না। আগে ব্যাট করে বাংলাদেশ নারী দল থামে ১২০ রানে। জবাব দিতে নেমে আইরিশরা জমিয়ে তোলে ম্যাচ। নিয়ে যায় শেষ ওভারে। তবে নাহিদা আক্তার কোনো বিপদ ঘটতে দেননি। শেষ ওভারে ৭ রান দিয়ে নারী দলের শিরোপা জয় নিশ্চিত করেন তিনি।


লক্ষ্য ছোট হলেও রান তাড়ায় নেমে শুরুতেই বিপদে পড়ে আয়ারল্যান্ড। ২৪ রানেই ৩ উইকেট হারিয়ে বসে দলটি। দলটির টপ অর্ডারের তিন ব্যাটারই ফিরে যান দুই অংকের দেখা না পেয়েই। গ্যাবি লুইস (৪ রান) এবং ওরলা প্রেন্ডারগাস্টকে (৯ রান) বোল্ড করে সাজঘরে ফেরত পাঠান সানজিদা আক্তার। ওপেনার অ্যামি হান্টারের (৭ রান) উইকেট তুলে নেন নাহিদা আক্তার।

চতুর্থ উইকেট জুটিতে লরা ডিলানি এবং এইমিয়ার রিচার্ডসন দলকে উদ্ধারের চেষ্টা চালান বটে। তবে এই জুটি ভাঙতেই আবার বিপদে পড়ে দলটি। দলীয় ৪৭ রানে ১৮ করে রিচার্ডসন ফিরলে ভাঙে এই জুটি। এরপর স্কোরবোর্ডে আর ১১ রান যোগ হতে আরও তিন উইকেট হারায় আইরিশরা।

শেষদিকে ম্যাচে টানটান উত্তেজনা আনেন আর্লেন কেলি। ম্যারি ওয়ালড্রনের ১৯ এবং কারা মারের ১৩ রানের পর তিনি ২৪ বলে করেন ২৮ রান। তবে করে অপরাজিত থাকেন তিনি। তবে তাদের এই প্রচেষ্টা কেবল আয়ারল্যান্ডের হারের ব্যবধানই কমিয়েছে। বাংলাদেশের পক্ষে সেরা বোলার রুমানা। ২৪ রানে ৩ উইকেট তুলে নেন তিনি। দুটি করে উইকেট পেয়েছেন সানজিদা-নাহিদা-সোহেলী। বল হাতে উইকেট আর কিপ্টে বোলিংয়েই মূলত বাংলাদেশকে জয় এনে দেন বোলাররা। এর আগে, বাছাইপর্বের ফাইনালে আগে ব্যাট করে মাত্র ১২০ রানেই থামে বাঘিনীদের রানের চাকা। ফারজানা হকের ৬১ রানের সুবাদেই শতরানের গণ্ডি পেরোয় বাংলাদেশের।

ফাইনালে টস জিতে আগে ব্যাটিং করার সিদ্ধান্ত নেয় বাংলাদেশ দলের অধিনায়ক নিগার সুলতানা জ্যোতি। তবে শুরু থেকেই ধীর গতিতে এগোচ্ছিল বাংলাদেশের ইনিংস। তৃতীয় ওভারের মাথায় ওপেনার মুর্শিদা খাতুনকে হারানোর পরেই টাইগ্রেসরা নিজেদের একটু গুটিয়ে নেয়। মুর্শিদা ফেরেন ৬ রান করে।

আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে গ্রুপ পর্বের ম্যাচে ক্যাপ্টেনস নক খেলে ম্যাচসেরা হয়েছিলেন অধিনায়ক নিগার। তবে ফাইনালে তিনিও ফিরলেন দ্রুত। মুর্শিদার মতো ৬ রান করেই। তবে তৃতীয় উইকেট জুটিতে ফারজানা-রুমানা যেভাবে খেলছিলেন তাতে বড় সংগ্রহের স্বপ্নই দেখছিল বাংলাদেশি সমর্থকরা।

কিন্তু পরপর দুই ওভারে রুমানা আহমেদ এবং ফারজানা হক বিদায় নেওয়ার পর সেই স্বপ্নের অপমৃত্যু ঘটে। রুমানা সেট হয়ে ২০ বলে ২১ রান করে বিদায় নেন। ফারজানা ফিফটি তুলে নেওয়ার পর তার পথে হাঁটেন ৬১ রান করে। ৫৫ বলে ৭ চারের মারে ইনিংসটি সাজান এই ওপেনার।

এরপর শোবানা মোস্তারি (৬ রান), রিতু মনি (৯ রান), সালমা খাতুন (৪ রান) এবং লতা মণ্ডল আশা-যাওয়ার মিছিলে নাম লেখালে ২০ ওভার শেষে ৮ উইকেট হারিয়ে ১২০ রানের পুঁজিই পায় বাংলাদেশ। আইরিশদের হয়ে সর্বোচ্চ ৩ উইকেট শিকার করেছেন লরা ডিলানি। দুটি করে উইকেট পকেটে পুরেছেন কারা মারে এবং আর্লেন কেলি।


আরো পড়ুন