• বুধবার, ০৩ মার্চ ২০২১, ০৫:১৫ অপরাহ্ন
Headline
ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে আটক সকল সাংবাদিককে মুক্তি দিতে হবে সাংবাদিক নির্যাতন, হত্যা, মিথ্যা মামলা ও হয়রানীর প্রতিবাদে উপজেলা প্রেসক্লাবের কলম বিরতি! জয়পুরহাটে জাতীয় ভোটার দিবস পালিত চার পথ নিরাপদের দাবিতে সুনামগঞ্জে সেভ দ্য রোড-এর সমাবেশ! ধর্মপাশায় সুনুই জলমহাল লুটের ঘটনায় উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান রোকন সহ ৪২ জনের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ! দুই মাস যাবত ইলিশ ধরা বন্ধ !   প্রায় ২৫ কোটি টাকা আগুনে পুড়েছাই২৫ দোকান,আতঙ্কে ব্যবসায়ীর হার্টঅ্যাটাক! গাইবান্ধা ফুলছড়িতে আওয়ামীলীগের নেতা লাল মিয়া সরকারের খুনিদের দ্রুত গ্রেফতারের দাবিতে সড়কে বিক্ষোভ অবরোধ জামালপুরের তিনটি পৌরসভা নির্বাচনে নৌকার বিজয়! জয়পুরহাটে দ্বিতীয় বারের মতো পৌর পিতা হলেন- মেয়র মোস্তাক

টেকনাফের পাহাড়ে র‌্যাবের ‘ড্রোন’ অভিযান!

Reporter Name / ৬৪ Time View
Update : শনিবার, ২৬ অক্টোবর, ২০১৯

ডেস্ক রিপোর্ট:- র‌্যাব টেকনাফের পাহাড়ে ড্রোন দিয়ে অভিযান চালিয়েছে। রোহিঙ্গা ডাকাত আবদুল হাকিমের আস্তানার সন্ধান পেতে শরণার্থী শিবিরের নিকটবর্তী পাহাড়ে ড্রোন দিয়ে অভিযান পরিচালনা করা হয়। শুক্রবার ২৫ অক্টোবর সকাল ৭টায় থেকে বিকাল ৩টা পর্যন্ত টেকনাফের বাহারছড়া তইগ্যা পাহাড়সহ বেশ কয়েকটি দুর্গম পাহাড়ে অভিযান চালায় র‌্যাব-১৫। ডাকাতদের কয়েকটি আস্তানায় অভিযান চালালেও কাউকে গ্রেফতার করা যায়নি। র‌্যাবের উপস্থিতি টের পেয়ে তারা আগেই পালিয়ে যায়।

জানা যায়, রোহিঙ্গা শিবিরকে ঘিরে সক্রিয় রয়েছে ডাকাতের সংঘবদ্ধ সদস্য। ডাকাতি ছাড়াও তারা অপহরণ, ধর্ষণ, ছিনতাই, মাদক কারবারের সঙ্গে জড়িত। এদের মূলহোতা রোহিঙ্গা ডাকাত আবদুল হাকিম। তার মূল আস্তানা ক্যাম্প সংলগ্ন পাহাড়ি এলাকায়। অতি সম্প্রতি টেকনাফের উপকুলীয় ইউনিয়ন বাহারছড়ার শীলখালী থেকে স্কুল ছাত্রী ২ বোনকে কুখ্যাত রোহিঙ্গা ডাকাত আবদুল হাকিম অপহরণ করে নিয়ে গিয়েছিল।

অভিযান পরিচালনাকারী র‌্যাব-১৫ অধিনায়ক উইং কমান্ডার আজিম আহমেদ অভিযান শেষে বলেন, ‘ক্যাম্প সংলগ্ন পাহাড়ে থাকা ডাকাতরা রোহিঙ্গা ও স্থানীয়দের জিম্মি করে প্রায়ই লুটপাট করে। এছাড়া ডাকাত দলের সদস্যরা আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর পরিচয়ে রোহিঙ্গাদের বাসায় ঢুকে মালপত্র লুট ও অপহরণ করে। ক্যাম্পের ভেতর বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠানেও হামলা চালায়। পাহাড়ি এলাকায় রোহিঙ্গা ডাকাত হাকিম বাহিনীর অবস্থানের খবর রয়েছে। তারা পাহাড়ি এলাকায় আস্তানা গড়ে তুলে অপহরণ, খুন ও ধর্ষণের মতো অপরাধ করছে। হাকিম বাহিনীর গ্রæপকে ধরতে পাহাড়ে প্রাথমিকভাবে আমরা অভিযান পরিচালনা করা হয়েছে। এটাই সর্বপ্রথম র‌্যাব হেড কোয়ার্টার থেকে ড্রোন এনে দুর্গম পাহাড়ে ড্রোনের ওড়িয়ে তাদের আস্তানার খোঁজার চেষ্টা করা করেছি। কোন সন্ত্রাসী বাহিনীকে ছাড় দেওয়া হবেনা। প্রয়োজনে দুর্গম পাহাড়ি এলাকায় র‌্যাব হেলিকপ্টারের মাধ্যমে অভিযান পরিচালনা করবে’।

অভিযানে উপস্থিত ছিলেন র‌্যাব-১৫ এর উপ-অধিনায়ক মেজর রবিউল হাসান, সিপিএসসি কোম্পানি কমান্ডার মেজর মেহেদী হাসান, সিপিএসসি স্কোয়াড কমান্ডার এডিশনাল এসপি বিমান চন্দ্র কর্মকার, সিপিসি-১ কোম্পানি কমান্ডার লেফটেন্যান্ট মির্জা শাহেদ মাহতাব (এক্স), বিএন, সিপিসি-২ কোম্পানি কমান্ডার এএসপি শাহ আলম প্রমুখ। ##


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category