• শুক্রবার, ২৭ মে ২০২২, ০২:৫৮ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম
যাত্রাবাড়ী থেকে ৩৯ কেজি গাঁজা ও ২০১ বোতল ফেনসিডিলসহ ০৩ মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার!  মোহাম্মদ নিজাম উদ্দীন নোয়াখালীর শ্রেষ্ঠ শিক্ষক নির্বাচিত ময়মনসিংহ নগরে ৮নং ওয়ার্ডে অবৈধ মদ নিয়ন্ত্রণকারীরা মদ বিক্রির চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিয়েছে নদের চরে স্থাপনা নির্মাণ: জানে না জেলা প্রশাসন ২দিন আটকে রেখে টাকা না পেয়ে পিটিয়ে হাত ভেঙে কোর্টে চালান ওসিসহ ৪জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ; এলাকাবাসীর মানববন্ধন জয়পুরহাটে ভিটামিন এ প্লাস ক্যাম্পেইন উপলক্ষ্যে জেলা পর্যায়ে সাংবাদিকদের ওরিয়েন্টেশন কর্মশালা জাতীয় ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাম্পেইন ২০২২ উপলক্ষে সাংবাদিকদের ওরিয়েন্টেশন কর্মশালা অনুষ্ঠিত যাত্রাবাড়ী থেকে ২২ কেজি গাঁজাসহ ০৪ জন মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার!  নবাবগঞ্জের ভাইয়ের হাতে ভাই হত্যা মামলার প্রধান আসামী জাহাঙ্গীর কবিরাজ গ্রেফতার ময়মনসিংহে হামলার শিকার কবি সাংবাদিক শরৎ সেলিম ,থানায় অভিযোগ

বানারীপাড়ায় ছেলের মুক্তির দাবীতে পিতা-মাতার সংবাদ সম্মেলন!

Reporter Name / ১৯৭ Time View
Update : বুধবার, ২৩ অক্টোবর, ২০১৯

সুমন খান স্টাফ রিপোর্টারঃ বিডিআর বিদ্রোহের বিস্ফোরক মামলা দ্রুত নিষ্পত্তি না হওয়ায় বানারীপাড়ার হাবিবুর রহমান সহ ৩ শতাধিক আসামীর বন্দি জীবন শেষ হচ্ছেনা। বুধবার বিডিআরের সাবেক সিপাহী হাবিবুর রহমানের মা-বাবা ও স্ত্রী-সন্তান সহ পরিবারের সদস্যরা সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে দ্রুত মামলা নিষ্পত্তি করে তার মুক্তির দাবী জানিয়েছেন।

বুধবার সন্ধ্যা ৭টায় বানারীপাড়া প্রেসক্লাবে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে কারান্তরীণ হাবিবুর রহমানের পরিবারের সদস্যরা লিখিতভাবে জানান, হাবিবুর রহমান বাংলাদেশ বিডিআর (বর্তমান বিজিবি) বাহিনীতে দেশ ও জনগণনের জন্য কাজ করার মহান ব্রতী নিয়ে ২০০২ সালে সৈনিকপদে যোগদান করেন।

কিন্তু দুর্ভাগ্যজনকভাবে ২০০৯ সালের পিলখানা হত্যা মামলায় তাকে আসামী করা হয়। ২০১১ সালের ৫ জানুয়ারি ওই হত্যা মামলায় চার্জ গঠন করে ২ বছর ১০ মাস পর্যন্ত ৫৫৪ জন স্বাক্ষীদের স্বাক্ষ্য গ্রহন করে ২০১৩ সালের ৫ নভেম্বর রায় প্রদান করা হয়।

সেখানে ১৫২ জনকে ফাঁসি,১৬১ জনকে যাবৎজীবন ও ২৭৮ জনকে বিভিন্ন মেয়াদে সাজা প্রদান এবং ৭৯ জনের অপরাধ প্রমানিত না হওয়ায় তাদেরকে বেকসুর খালাস দেয়া হয়। হত্যা মামলায় বেকসুর খালাস পেলেও বিদ্রোহ মামলায় হাবিবুর রহমান ইতোমধ্যে সাজার দীর্ঘ ৬ বছর ভোগ করেছে।

পরে তাকে বিস্ফোরক মামলায় আসামী করে গ্রেফতার দেখানো হয়।সাজাভোগ করার ৬ বছর শেষ করে বর্তমানে তার কারাবাস জীবনের ১১ বছর চলছে।এর মধ্যে বিচার ছাড়াই ৬ বছর চলছে তার কারাবাস।

সে যখন পিলখানা হত্যা মামলায় আসামী হয় তখন তার একমাত্র সন্তান জাকারিয়া রহমান (১২)’র বয়স ছিলো মাত্র ১ বছর। হাবিবুর রহমান দীর্ঘদিন ধরে কারাগারে থাকায় তার বৃদ্ধ মা-বাবা ও স্ত্রী-সন্তান সহ পরিবারের সদস্যরা মানবেতর জীবনযাপন করছে।

তাদের সংসারে নুন আনতে পানতা ফুরায় অবস্থা বিরাজ করছে।এ অবস্থায় তারা তাকে নির্দোষ দাবী করে তার জামিনে মুক্তির জন্য মানবতার মা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে আকুল আবেদন জানিয়েছেন। বৃদ্ধ মা-বাবা জীবদ্দশায় ছেলেকে মুক্ত দেখে যেতে আকুতি জানিয়েছেন। প্রসঙ্গত সিপাহী হাবিবুর রহমানের বাড়ি বানারীপাড়ার বাইশারী ইউনিয়নের উত্তর নাজিরপুর গ্রামে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category