• রবিবার, ০২ অক্টোবর ২০২২, ০৯:৫৮ পূর্বাহ্ন
171764904_843966756543169_3638091190458102178_n

আর্থিক স্বল্পতায় থমকে গেছে মসজিদের নির্মাণকাজ

/ ৬৬ বার পঠিত
আপডেট: রবিবার, ১১ সেপ্টেম্বর, ২০২২
আর্থিক স্বল্পতায় থমকে গেছে মসজিদের নির্মাণকাজ

“ছোট ছোট বালুকণা বিন্দু বিন্দু জল,গড়ে তোলে মহাদেশ সাগর অতল” প্রবাদটির বাস্তবায়ন হলে সমাজের সকল কাজ থমকে থাকার কথা নয়।

গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ উপজেলার ৪ নং বেলকা ইউনিয়নের পশ্চিম বেলকায় অর্থাভাবে থমকে আছে মসজিদের নির্মাণ কাজ। প্রায় ৩ হাজার লোকের নামাজ আদায়ের লক্ষ্যে মসজিদ নির্মাণ কাজ শুরু করলেও এখন অর্থের অভাবে থমকে গেছে নির্মাণ কাজ। জানা যায়, চলতি বছরের ১০ জানুয়ারিতে ৩ তলা বিশিষ্ট মসজিদের ভিত্তি দেয়া হয়। নদী ভাঙ্গনের ফলে এই এলাকায় কোন মসজিদ না থাকায় হাজার লোকের নামাজ আদায়ের একমাত্র মসজিদ এটি। একটু সহায়তা পেলে এলাকবাসীর মসজিদটির নির্মান সম্পন্ন সম্ভব।


পশ্চিম বেলকা চৌমুহনী কলের কুয়া জামে মসজিদের সভাপতি সেনাবাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত সার্জেন্ট শহিদুল ইসলাম জানান, আমাদের এখানে নামাজ আদায়ের কোন মসজিদ নেই। বিপুল পরিমাণ মানুষের নামাজ আদায়ের লক্ষ্যে মসজিদ নির্মাণের উদ্যোগ নিলেও বর্তমানে টাকার অভাবে থমকে আছে আমাদের নির্মাণকাজ তবে সমাজের বিত্তবানদের সহযোগীতা পেলে মসজিদটির বাকী কাজ সমাপ্ত করা সম্ভব।

স্থানীয় মুসল্লী আলহাজ্ব মাওলানা আঃ কাদের আজাদ জানান,আমরা চাই মসজিদের কাজে সকলে এগিয়ে আসুক।সেই সাথে হাজারো লোকের ইবাদতে সহযোগীতা করুক। এক প্রশ্নের জবাবে এলাকাবাসীর মধ্যে আবু সালেহ,গোলাম মোস্তফা,জবেদ আলী,ফেরদৌস সরকার অশ্রুসজল চোখে উত্তর দেন হামরা গরীব বাবা, অনেক কষ্ট করে মসজিদের ভিত্তি দিয়ে কাজ শুরু করছি। কেউ সহায়তা করলে আমরা মসজিদটির কাজ শেষ করতে পারবো।

মসজিদ কমিটির সাধারণ সম্পাদক, মঞ্জুরুল আলম সবুজ বলেন, নির্মাণ কাজ শেষ করতে অনেক টাকার দরকার।কেউ কি নাই একটু সহায়তা করবে? কথাটি বলতেই কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন সবুজ।
অত্র মসজিদের পেশ ইমাম শফিউল আলম শেখ বলেন,সমাজের মানুষের দীর্ঘদিনের স্বপ্ন একটি মসজিদ হবে সেখানে আমরা সবাই নামাজ পড়বো। দারিদ্র্য এলাকায় ওতো টাকা আমরা কই পাবো। তাই সমাজের বিত্তবানদের কাছে সহযোগিতা কামনা করছি।
যোগাযোগঃ
মসজিদ কমিটির সভাপতি- শহিদুল ইসলাম- ০১৭৪৪৯৩০৮৯৫
সাধারণ সম্পাদক – সবুজ-০১৭২৫০২২৭১৫


আরো পড়ুন