• শুক্রবার, ২৭ জানুয়ারী ২০২৩, ০৫:০৮ পূর্বাহ্ন




পুলিশ/র‍্যাব/বিজিবি/অন্যান্য সংস্থার বিভিন্ন পদবির অফিসার পরিচয় কারীকে গ্রেফতার করেছে র‍্যাব

/ ৬৮ বার পঠিত
আপডেট: শনিবার, ৩ সেপ্টেম্বর, ২০২২

ডেস্ক রিপোর্টঃ

গত ১৬ আগস্ট ২০২২ ইংরেজি তারিখ সন্ধ্যা অনুমান ৬ টার সময় ঘটি জনৈক মোহাম্মদ খোরশেদুল আলম এর ফোনে অজ্ঞাতনামা এক ব্যক্তি নিজেকে এসআই পরিচয় দিয়ে বিভিন্ন প্রকার হুমকি ও ভয়ভীতি প্রদান সহ পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের বিরুদ্ধে মামলা মোকাদ্দমা দায়ের করার হুমকি প্রদান করতঃ তার নিকট ২০,০০০ টাকা দাবী করে। ভিকটিম সরল বিশ্বাসে উক্ত প্রতারকের দেয়া নামের তগ ১৬ আগস্ট রাতে ২০,৪০০ টাকা বিকাশে প্রেরণ করেন। পরবর্তীতে উক্ত প্রতারক থানার ওসি সেজে টাকা চাইলে খোরশেদ আলম গেল ১৭ আগস্ট সকালে ৩০৬০ টাকা বিকাশে প্রেরণ করে। ঐদিনই উক্ত প্রতারক সার্কেল এএসপি সেজে ভিকটিমকে বিভিন্নভাবে ভয় ভীতি প্রদর্শন করে ৫০,০০০ টাকা দাবী করলে ভিকটিম ১৭ আগস্ট রাতে আরও ২৯,৫৮০ টাকা বিকাশে প্রেরণ করে।

এছাড়া উক্ত প্রতারক এসপি সেজে ভিকটিমের বিভিন্ন বিষয়ে খোজ খবর নেন। এভাবে উক্ত প্রতারক ভিকটিমের সরল বিশ্বাসের সুযোগ নিয়ে সর্বমোট ৫৩,০৪০ টাকা হাতিয়ে নেয়। অতঃপর প্রতারক তাকে পুনরায় র‍্যাবের অফিসার পরিচয় দিয়ে ফোন দেয় এবং জানায় মামলাটি বর্তমানে র‍্যাবের নিকট এসেছে এবং সে উক্ত মামলার বিষয়ে খোজ খবরের নাম করে তার নিকট পূনরায় টাকা দাবী করেন।

ঘটনার বিষয়টি সন্দেহজনক মনে হলে ভিকটিম খোরশেদুল আলম চট্টগ্রাম র‍্যাব-৭ কে অবহিত করলে চট্টগ্রাম র‍্যাব-৭ বিষয়টি অনুসন্ধান করে ঘটনার সত্যতা পায়। অতঃপর চট্টগ্রামের র‍্যাব-৭ একটি আভিযানিক দল গোয়েন্দা নজরধারীর মাধ্যমে গত ১ সেপ্টেম¦র রাত ১২ টা ৪৫ মিনিটে চট্টগ্রাম জেলার ফটিকছড়ি থানাধীন নাজিরহাট বাজার এলাকা হতে আসামী মোঃ বেলাল হোসেন(৩১), পিতাঃ মৃত আব্দুল মালেক, সাংঃ বক্তপুর, থানাঃ ফটিকছড়ি,জেলাঃ চট্টগ্রামকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়। পরবর্তীতে আটককৃত প্রতারককে জিজ্ঞাসাবাদে সে সব কিছু স্বীকার করে বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন পরিচয় দিয়ে প্রতারণার মাধ্যমে খোরশেদ আলম এর নিকট হতে মোট ৫৩,০৪০ টাকা আদায় করেছে।

পরবর্তীতে উক্ত প্রতারকের প্রতারণার স্বীকার ভিকটিমদের নিকট হতে জানা যায়, উক্ত প্রতারক প্রতারণার মাধ্যমে ২০২১ সালের মে মাস হতে বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন লোকের কাছে আইনশৃংখলা রক্ষা বাহিনীর/র‍্যাব বাহিনীর সদস্য হিসাবে মিথ্যা পরিচয় দিয়ে একটা প্রাইভেটকার ভাড়া করে ঘুরে বেড়াত এবং বিভিন্ন কাজ করে দেওয়ার নাম করে বিভিন্ন অজুহাতে বিভিন্ন লোকের নিকট থেকে মোটা অংকের টাকা হাতিয়ে নিত। কাউকে আবার মেম্বার বানিয়ে দেবেন আবার কখন সয়াবিন তেলের ডিলার সেজে প্রতারনা করতেন । প্রতারক বেলালকে আগে মুরগির ফার্ম ছিল বলে জানা যায় ।





আরো পড়ুন