• বৃহস্পতিবার, ০৬ অক্টোবর ২০২২, ০৭:৪৯ পূর্বাহ্ন
171764904_843966756543169_3638091190458102178_n

বরগুনা জেলা ছাত্রলীগের কমিটি অবাঞ্ছিত ঘোষণা

/ ২৮ বার পঠিত
আপডেট: বুধবার, ১৭ আগস্ট, ২০২২
বরগুনা জেলা ছাত্রলীগের কমিটি অবাঞ্ছিত ঘোষণা songbad tv

জাতীয় শোক দিবসে জেলা ছাত্রলীগের একাংশের নেতা-কর্মীদের উপর লাঠি চার্জ ও বরগুনা-১ আসনের সংসদ সদস্য ধীরেন্দ্র দেবনাথ শমভুর সঙ্গে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মহরম আলী ‘অশোভন’ আচরণের প্রতিবাদে উত্তাল বরগুনার আওয়ামী লীগ। এ ঘটনায় বরগুনা জেলা ছাত্রলীগের নতুন কমিটিকে অবাঞ্ছিত ঘোষণা করেছে জেলা আওয়ামী লীগ।

মঙ্গলবার রাতে এক যোগে ৬ টি উপজেলায় বিক্ষোভ করে দলীয় নেতাকর্মীরা। মহরম আলীকে বরখাস্ত না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দেয় তারা। রাত ৮টায় বিক্ষোভ মিছিল শেষে পৌর সুপার মার্কেটের সামনে বিক্ষোভ সমাবেশে জেলা ছাত্রলীগের নতুন কমিটিকে অবাঞ্ছিত ঘোষণা করেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আলহাজ মো. জাহাঙ্গীর কবির।

জানা যায়, সোমবার দুপুর ১২টার দিকে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৭তম শাহাদতবার্ষিকী উপলক্ষে বঙ্গবন্ধু স্মৃতি কমপ্লেক্সে ফুল দিয়ে জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি রেজাউল ইসলাম রেজা ও সাধারণ সম্পাদক ইমরান হোসেন শিল্পকলা একাডেমির সামনে পৌঁছলে ছাত্রলীগের পদবঞ্চিত এক গ্রুপের সদস্যরা তাদের ওপর ইটপাটকেল নিক্ষেপ করে। এতে দুই গ্রুপের নেতাকর্মীরা সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে লাঠিচার্জ করে তাদের ছত্রভঙ্গ করে দেয়।

এ সময় এমপি ধীরেন্দ্র দেবনাথ শমভু বার বার নিষেধ করলেও মহরম ও তার নেতৃত্বাধীন পুলিশ বাহিনী ছাত্রলীগের কর্মীদের পেটানো অব্যাহত রাখে। ঘটনার পর সোমবার রাতে বরিশালের অতিরিক্ত ডিআইজি বরগুনা আসেন। তিনি বরগুনার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার এস এম তারেক রহমানকে প্রধান করে তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করেন। এদিকে সোমবার রাতে বরগুনা প্রেস ক্লাবের একটি অনুষ্ঠানে এমপি মহরম আলীকে প্রত্যাহার ও বিচার দাবি করেন। অন্য দিকে একই স্থানে জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি রেজাউল কবির রেজা ওই পুলিশ অফিসারকে ধন্যবাদ জানান।


মুহূর্তের মধ্য উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে শহরে। তারই ধারাবাহিকতায় মঙ্গলবার দুপুরে মহরম আলীসহ ১১ জন পুলিশকে প্রত্যাহার করে বরিশাল ডিআইজি এসএম আকতারুজ্জামান। মঙ্গলবার সন্ধ্যার পরে এক যোগে জেলার ৬ টি উপজেলায় বিক্ষোভ মিছিল করে আওয়ামী লীগ, যুবলীগ ও ছাত্রলীগ। হই হই রই রই মহরম গেলি কই। শ্লোগানে শ্লোগানে মুখরিত বরগুনা শহর। হাজারো নেতাকর্মী মহরমের শাস্তি দাবি করে।

বিক্ষোভ শেষে পৌর মার্কেটের সামনে বক্তব্য দেয় বরগুনা-১ আসনের সংসদ সদস্য ধীরেন্দ্র দেবনাথ শমভু, জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক মো. জাহাঙ্গীর কবির, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আবদুল মোতালেব মৃধা, আব্বাস হোসেন মন্টু মোল্লা, পৌর মেয়র কামরুল আহসান মহারাজসহ দলীয় নেতারা। জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. জাহাঙ্গীর কবির নবাগত জেলা ছাত্রলীগের নেতাদের অবাঞ্চিত ঘোষণা করেন। এমপি বলেন, মহরম আলীর বিচার না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন চলবে। কাল বুধবার বিকাল ৩ টায় বরগুনা সার্কিট হাউজ মাঠে আবারও বিক্ষোভ সমাবেশ সমাবেশের ডাক দিয়েছেন জেলার নেতারা।


আরো পড়ুন