• রবিবার, ০২ অক্টোবর ২০২২, ১০:২২ পূর্বাহ্ন
171764904_843966756543169_3638091190458102178_n

জমি নিয়ে সংঘর্ষ আহত ৪ নিহত ১

সোহেল হোসেন, লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি / ১১৪ বার পঠিত
আপডেট: শুক্রবার, ৫ আগস্ট, ২০২২
জমি নিয়ে সংঘর্ষ আহত ৪ নিহত ১

লক্ষ্মীপুরে জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে মো. হোসেন আহমেদ (৫৫) নামে এক বৃদ্ধকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে। এই ঘটনায় আরও ৪ জন আহত হয়েছেন। আহতদেরকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে৷ বৃহস্পতিবার (৪ আগস্ট) দুপুর ১২ টার দিকে সদর উপজেলার দিঘলী ইউনিয়নের উত্তর রমাপুর গ্রামে এই দুর্ঘটনা ঘটে।
ঘটনার সঙ্গে জড়িত তিনজনকে আটক করেছে পুলিশ। তারা হলেন মেহেদি হাসান বাবুল, আবদুর রহিম ও জাহানারা বেগম।নিহত হোসেন উত্তর রমাপুর গ্রামের মৃত আলী আহমেদের ছেলে। আহতরা হলেন আমির হোসেন (৫০), তার ছেলে আকরাম হোসেন (১৯), নাজমুল ইসলাম (১৫), মনির আহমেদের ছেলে কামরুল হোসেন। আহতদের অবস্থা আশঙ্কাজনক। খবর পেয়ে সদর হাসপাতালে আহতদের দেখতে আসেন লক্ষ্মীপুর জেলা পুলিশ সুপার (এসপি) ড. এএইচএম কামরুজ্জামান।
স্থানীয়রা সূত্র ও ভূক্তভোগীরা জানায়, উত্তর রমাপুর গ্রামের আব্দুস সাত্তার মাষ্টারের পরিবারের সঙ্গে ইউনুস মাষ্টারের পরিবারের জমি সংক্রান্ত দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ রয়েছে। সকালে ইউনুসের ছেলে সাইফুর রহমান দুলাল, সাইদুর রহমান মিলন ও লিটন ভাড়াটে লোকজন নিয়ে বিরোধীয় জমিতে ঘর নির্মাণ করতে যায়। এতে বাধা দিলে তারা সাত্তারের মেয়ে জামাই হোসেন আহমেদসহ আহতদের ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে জখম করে। স্থানীয়রা আহতদের উদ্ধার করে সদর হাসপাতালে আনার পথে হোসেন আহমেদ মারা যান। আহত আমির, আকরাম, নাজমুল ও কামরুলকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। তাদের অবস্থা আশংকাজনক হওয়ায় উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়।
এই দিকে ঘটনার পর থেকেই হামলাকারীরা পলাতক রয়েছে। এজন্য কারো বক্তব্য নেওয়া যায়নি। নিহতের স্বজন আবদুল বাকের বলেন, ইউনুসের ছেলেরা পরিকল্পিতভাবে হামলা করেছে। আমার ভাইরা ভাইকে তারা কুপিয়ে হত্যা করেছে। আহতদের অবস্থা খুবই খারাপ।
সদর হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক শামিম মোহাম্মদ আফজাল বলেন, নিহত ব্যাক্তির গলায় ধারালো অস্ত্রের আঘাত ছিল। আহতদের হাত-পা, মাথা ও পিঠসহ শরীরের বিভিন্ন অংশে ধারালো অস্ত্রে আঘাত রয়েছে। তাদেরকে এখানে রেখে চিকিৎসা দেওয়া সম্ভব নয়। তাদার অবস্থা খুবই আশংকাজনক।
লক্ষ্মীপুর শহর পুলিশ ফাঁড়ির পরদর্শক (তদন্ত) জহিরুল আলম বলেন, হামলার ঘটনায় একজন মারা গেছেন। আহতদের কে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা পাঠানো হয়৷ অতিরিক্ত জেলা পুলিশ সুপার (প্রশাসন) পলাশ কান্তি নাথ বলেন, ঘটনার সঙ্গে জড়িত ৩ জনকে আটক করা হয়েছে। থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে। ঘটনাটি গুরুত্ব দিয়ে
তদন্ত চলছে।


আরো পড়ুন