• শনিবার, ০১ অক্টোবর ২০২২, ১১:১৬ পূর্বাহ্ন
171764904_843966756543169_3638091190458102178_n

৬ বছর বয়সী শিশু মাদ্রাসার ছাত্রী ধর্ষণ মামলার পলাতক আসামী মঞ্জু র‍্যাবের গ্রেফতার 

নিজস্ব প্রতিবেদক / ৩৯ বার পঠিত
আপডেট: শুক্রবার, ২৯ জুলাই, ২০২২
৬ বছর বয়সী শিশু মাদ্রাসার ছাত্রী ধর্ষণ মামলার পলাতক আসামী মঞ্জু র‍্যাবের গ্রেফতার 

ঢাকা জেলার দক্ষিণ কেরাণীগঞ্জ এলাকায় ভাড়াটিয়া বাসায় ভিকটিম (০৬) তার মা-বাবার সাথে বসবাস করত। ভিকটিমের মা-বাবা তাকে লেখাপড়া করার জন্য স্থানীয় একটি মহিলা মাদ্রাসায় কেজি শ্রেনীতে ভর্তি করেন।

গত ১৬/০৭/২০২২খ্রিঃ তারিখ সকাল ০৮:০০ ঘটিকায় প্রতিদিনের ন্যায় ভিকটিমের “মা” ভিকটিম’কে পড়াশুনা করার জন্য মাদ্রাসায় দিয়ে বাসায় চলে আসেন।

একই দিন সকাল ১০:১৫ ঘটিকায় ভিকটিমের “মা” তার মেয়ে (ভিকটিম)’কে টিফিন খাওয়ানো উদ্দেশ্যে মাদ্রাসায় গেলে দেখতে পান ক্লাসের শিক্ষিকা ও সকল ছাত্রীরা টিফিনের জন্য যে যার বাসায় চলে গেছে এবং তার মেয়েও ক্লাসে নেই। ভিকটিমের “মা” তার মেয়েকে খোজাখুজির এক পর্যায়ে ভিকটিমের চিৎকার শুনে মাদ্রাসার কেবিনে সামনে গিয়ে দেখতে পান উক্ত মাদ্রাসার শিক্ষিকার স্বামী মোঃ আবদুল মঞ্জু (৪০) ভিকটিম’কে জোরপূর্বক তার ইচ্ছার বিরুদ্ধে ধর্ষণ করছে। ভিকটিমের “মা”কে দেখে মঞ্জু ভিকটিম’কে ছেড়ে দিয়ে ভিকটিমের মাকে ধাক্কা মেরে ফেরে দিয়ে দৌড়ে পালিয়ে যায়। পরবর্তীতে ভিকটিমের “মা” চিকিৎসার জন্য ভিকটিম’কে অসুস্থাবস্থায় ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যায়।

অতঃপর ভিকটিমের “মা” উক্ত বিষয়ে তার স্বামীসহ আত্মীয়-স্বজনদের সাথে পরামর্শ করে কেরাণীগঞ্জ মডেল থানায় মোঃ আবদুল মঞ্জু (৪০)’র বিরুদ্ধে একটি ধর্ষণ মামলা দায়ের করেন। যাহার মামলা নং- ২৮/৩৪৫ তারিখ ১৭/০৭/২০২২খ্রিঃ, ধারা- নাঃশিঃ নির্যাতন দমন আইন ২০০০(সংশোধনী ২০০৩) এর ৯(১) ধারা।

উক্ত ঘটনার সংবাদ পেয়ে র‌্যাব-১০ এর একটি আভিযানিক দল উক্ত শিশু ধর্ষণ মামলায় অভিযুক্ত ব্যক্তিকে গ্রেফতারের লক্ষ্যে ছায়া তদন্ত শুরু করে। এরই ধারাবাহিকতায় গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে র‌্যাব-১০ এর উক্ত আভিযানিক দল অদ্য ২৯ জুলাই ২০২২ খ্রীঃ তারিখ রাজধানী ঢাকার কাফরুল থানাধীন মিরপুর-১৩ সি-বøক এলাকায় একটি অভিযান পরিচালনা করে উক্ত ০৬ বছর বয়সী শিশু মাদ্রাসার ছাত্রীকে ধর্ষণের অপরাধে রজুকৃত মামলার পলাতক আসামী মোঃ আবদুল মঞ্জু (৪০)’কে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়। এসময় তার নিকট হতে ০১টি মোবাইল ফোন উদ্ধার করা হয়। প্রাথমকি জিজ্ঞাসাবাদে, গ্রেফতারকৃত আসামী উক্ত ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে।

গ্রেফতারকৃত আসামীকে সংশ্লিষ্ট থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।


আরো পড়ুন