• বুধবার, ১০ অগাস্ট ২০২২, ০৪:৪৭ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম
পুলিশের সহযোগিতায় সাংবাদিকদের পেটালেন ক্লিনিক মালিক, এসআই বরখাস্ত, গ্রেফতার – ৪  কামরাঙ্গীরচরে সাংবাদিকের ওপর হামলায় হাসপাতাল মালিকসহ আটক ৩, এসআই বরখাস্ত জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে জামালপুরে ফ্রি ডেন্টাল ক্যাম্প ও বিনামূল্যে ওষুধ বিতরণ নড়াইলের বরেণ্য চিএশিল্পী এসএম সুলতানের ৯৮তম জন্মবাষিকী আজ শিবপুরে দলিল লেখকদের অনৈতিক দাবিতে কোটি টাকার রাজস্ব হারাচ্ছে সরকার, বিপাকে সাধারণ মানুষ নারীর চিকিৎসার টাকা ফিরিয়ে দিলেন ওসি মালদ্বীপ শাখা আওয়ামীলীগের উদ্যোগে বঙ্গমাতার জন্মবার্ষিকী পালিত সমসাময়িক বিষয়ে সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দিচ্ছেন তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ এমপি – ভিডিও উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে দিনের বেলায় রাতের অন্ধকার,মোবাইল টর্চে চলছে চিকিৎসা সেবা প্রধানমন্ত্রীর সরকারী ঘর দেওয়ার নামে দিনমুজুরের টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগ

ভারতীয় গরুতে সয়লাব সীমন্তবর্তী জেলা জয়পুরহাটে

নেওয়াজ মোর্শেদ নোমান, জয়পুরহাট প্রতিনিধি / ৬৬ Time View
Update : রবিবার, ৩ জুলাই, ২০২২

ভারতীয় কোল ঘেঁষা জেলা জয়পুরহাট। কোরবানি ঈদ উপলক্ষে গড়ে উঠেছে রমরমা পশুর হাট বাজার। সেখানে স্থান পাচ্ছে বিভিন্ন জাতের দেশী-বিদেশী শাহীওয়াল পশুসহ ভারতীয় আমদানী করা গরু।

এ জেলায় সবচেয়ে বড় পশু হাট জয়পুরহাট পৌরসভা হাট ও বাজার। যা শহরের নতুনহাট নামে পরিচিত। যেখানে ক্রেতা সমাগমের পাশাপাশি কোরবানীর পশুর ব্যাপক উপস্থিত দেখা যায়। দিন যতই ঘনিয়ে আসছে বাড়ছে জেলায় বেচা-কেনা। তবে খামারিরা দাবি চাহিদা অনুযায়ী পশু বিক্রি করতে পারছে না তারা। কারণ হাটে ব্যাপক ভারতীয় গরুর আমদানি থাকায় দেশীয় পশুর দাম কম হাঁকাচ্ছেন ক্রেতারা। অন্যদিকে, ক্রেতাদের দাবি গরুর দাম সহনীয় রয়েছে, চাহিদা অনুসারে কোরবানীর পশু কেনা যাচ্ছে।

জেলা প্রাণী সম্পদ অধিদপ্তরের তথ্য মতে, এ জেলায় ছোট-বড় মিলিয়ে প্রায় ৩৫টি কোরবানির পশুর হাট বসেছে। আর প্রায় ২০ হাজার খামারে কোরবানির জন্য গবাদিপশু মজুদ রয়েছে ১ লাখ ৭৮ হাজার ৬৬০টি।

জয়পুরহাট পৌরসভা হাট ও বাজার (নতুনহাট) এর পরিচালক মোস্তাফিজুর রহমান মিলন বলেন, অন্যান্য বছরের তুলনায় এবছরে দেশী-বিদেশী কোরবানির পশুর ব্যাপক উপস্থিত থাকলেও বিক্রি কম। দেশের করোনা পরবর্তী অর্থনীতিক বিপর্যয় এবং বন্যা পরিস্থিতির ফলে মানুষের ক্রয় ক্ষমতা অনেকটা কমে গেছে। তবুও নির্বিঘনে স্বাস্থ্য বিধি মেনেই কেনা-বেচা চলছে। হাটে রয়েছে সার্বিক নিরাপত্তায় র‌্যাব, পুলিশ, সিসি ক্যামেরা, পল্লী-পশু চিকিৎসক সব ধরনের ব্যবস্থা হয়েছে।

জেলা প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা ডা. মো. মাহফুজার রহমান বলেন, গতবারে চেয়ে এবারে কোরবানীর সংখ্যার বেশি হবে। কারন সাধারণ মানুষের হাতে টাকা এসেছে, মানুষের ক্রয় ক্ষমতা বেড়েছে। যদিও গবাদি পশুর খাদ্যমূল্য কিছুটা বৃদ্ধি পেলেও, খামারীরা ব্যবসা করছে।

ভারতীয় গরুর ব্যাপারে জানতে চাইলে তিনি আরো বলেন, সরকারি ভাবে সীমান্ত বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। তবে তার মধ্য দিয়েও বছরের কোন সময়টাতে গরু ঢুকলে বিজিবি ক্রপ করে তা সরকারি বিধি মোতাবেক নিলাম করে। যা সাধারণ লোক কিনে নিয়ে প্রতিপালন করে বাজারে তুলেছে।

এদিকে, খামার ব্যবসায়ীরা দাবি করছে বাজারে ভারতীয় আমদানী করা গরু দেখা যাচ্ছে। এই গরু গুলো বর্তমান সময়ে আমদানি করা কোন নিলামে ক্রয় করা নয়, কেউ রশিদের কাগজ দেখাতে পারবে না। হাট পরিচালকের স্বাস্থ্য বিধি মেনেই কেনা-বেচার কথা বললেও দেখা যায়নি তেমন কোন ব্যবস্থা, নেই কোন মাস্ক।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category