• রবিবার, ০২ অক্টোবর ২০২২, ০৯:১৩ পূর্বাহ্ন
171764904_843966756543169_3638091190458102178_n

পরকিয়ার জেরে হত্যা: ৩৭দিন পর লাশ উদ্ধার

নেওয়াজ মোর্শেদ নোমান, জয়পুরহাট প্রতিনিধি / ২০৮ বার পঠিত
আপডেট: রবিবার, ২৯ মে, ২০২২
পরকিয়ার জেরে হত্যা: ৩৭দিন পর লাশ উদ্ধার

২৮ মে, ২২ইং জয়পুরহাটে ক্ষেতলাল উপজেলায় পরকিয়ার জেরে বিউটি বেগম (৩৫) নামে এক নারীকে হত্যা করা হয়েছে। শুক্রবার দিবাগত রাতে উপজেলার শিবপুর গ্রামে পায়খানার কুপ থেকে ৩৭দিন পর ঔ নারীর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। এ ঘটনায় ওই এলাকার প্রবাসী শাহ আলমের ছেলে উজ্জ্বল হোসেন (২১) কে তথ্য প্রযুক্তি আইনের সহযোগিতায় গ্রেফতার করা হয়। এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন ক্ষেতলাল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. রওশন ইয়াজদানী।

পুলিশ সুত্রে জানা গেছে, বগুড়া পুলিশ ইউনিট কর্তৃক অন্য একটি লাশ সনাক্ত করতে গিয়ে এঘটনার সুত্রপাত হয়। তখন বগুড়া পুলিশের ইউনিট তথ্য প্রযুক্তির মাধ্যমে নিহত বিউটি বেগম ও উজ্জ্বল হোসেনের মুঠোফোন টেকিং করলে এঘটনার বিষয়টা নিশ্চিত হয়। ঐ ইউনিট বগুড়া থেকে উজ্জ্বল হোসেনকে আটক করে। আটককৃত উজ্জ্বল হোসেনের তথ্যমতে তার গ্রামের বাড়ী ক্ষেতলাল উপজেলার শিবপুরে আসলে স্থানীয় পুলিশ প্রশাসনকে ডেকে নেয়। উজ্জ্বল হোসেনের স্বীকারোক্তিতে তার বাড়ীর পায়খানার কূপ থেকে ১ মাস ৭দিনের একটি গলিত লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।

নিহতের পড়নের কাপড় দেখে বিউটি বেগমের পরিবারের সদস্যরা লাশ সনাক্ত করে। আটককৃত উজ্জল আরো জানায়, মোবাইলে পরিচয়ের সূত্র ধরে প্রেমের টানে চলে আসে বিউটি বেগম। ঘটনার রাতে বিউটি বিয়ের জন্য চাপ দিলে তাকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করে। হত্যার পর উজ্জ¦ল তার বাড়ীর পিছনে পায়খানায় কূপে তাকে ফেলে দেয়। এ ব্যাপারে নিহতের বড় ভাই বাবলু মিয়া বাদী হয়ে একটি মামলা এজাহার করেন। এ ব্যাপারে ক্ষেতলাল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. রওশন ইয়াজদানী বলেন, নিহতের লাশ ময়নাতদন্তের জন্য জয়পুরহাট জেলা আধুনিক হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। আটককৃত উজ্জ্বলকে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজুতে পাঠানো হয়েছে। বিকেলে নিহতের বড় ভাই বাবলু মিয়া বাদী হয়ে একটি মামলা এজাহার করেন।


আরো পড়ুন