• শুক্রবার, ০১ জুলাই ২০২২, ০৫:৫২ অপরাহ্ন
শিরোনাম
কলম যুদ্ধে নামছে দৈনিক “দেশবাংলা”র এক ঝাঁক পেশাদার সংবাদকর্মী একতা মানবিক সোসাইটির পক্ষ থেকে সিলেট বাসীর মাঝে ত্রান সামগ্রী বিতরণ সাপাহারে কৃষকদের মাঝে বিনামূল্যে কৃষি উপকরণ বিতরণ পাঁচবিবি পৌর নির্বাচনের বাছাই পর্বে প্রার্থীর সমর্থককে জোরপূর্বক উঠিয়ে নেওয়ায় প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন সাঁথিয়া ভূমি অফিসের ময়লার ভাগাড়ে প্রধানমন্ত্রীর ছবি মির্জাগঞ্জে মাহিন্দ্রা ট্রাক্টর উল্টে চালক নিহত ময়মনসিংহ পিবিআই এর অভিযানে অটোরিক্সাসহ চোরচক্র গ্রেফতার সাপাহারে কৃষকদের মাঝে বিনামূল্যে কৃষি উপকরণ বিতরণ নড়াইলে পিকআপের ধাক্কায় ইজিবাইক যাত্রীর মৃত্যু; পিকআপসহ চালক আটক করেছে পুলিশ নড়াইলে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে একজনকে কুপিয়ে খুন, আহত ৫; অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন

নদের চরে স্থাপনা নির্মাণ: জানে না জেলা প্রশাসন

বদরুল আমীন, ময়মনসিংহ প্রতিনিধি / ১৪৯ Time View
Update : বৃহস্পতিবার, ২৬ মে, ২০২২

বিভাগীয় জেলা ময়মনসিংহ নগরীর মাঝ দিয়ে বয়ে চলা ব্রহ্মপুত্র নদের চরে স্থাপনা নির্মাণ হচ্ছে— এমন খবরে স্থানীয় সংগঠন জনঊদ্যোগ স্মারকলিপি দিয়েছে জেলা প্রশাসককে। জেলা প্রশাসন জানেই না কে বা কারা এ নির্মাণ কাজ করছে। তবে দ্রুত ব্যবস্থার আশ্বাস দিলেন জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ এনামুল হক। নদের মাঝে এমন পাকা স্থাপনা একেবারেই ‘অসামঞ্জস্যপূর্ণ’ ও ‘প্রকৃতিবিনাশী’ বলে অভিমত নাগরিক সমাজের।

জেলা প্রশাসকের কাছে স্মারকলিপি দেওয়াকালে উপস্থিত ছিলেন জনউদ্যোগ ময়মনসিংহ আহ্বায়ক অ্যাডভোকেট নজরুল ইসলাম চুন্নু, যুগ্ম-আহ্বায়ক অ্যাডভোকেট আবদুল মোত্তালেব লাল, সদস্য সচিব শাখাওয়াত হোসেন, সদস্য অ্যাডভোকেট আবুল কাশেম, অ্যাডভোকেট সৌমেন চৌধুরী, কাজী মোহম্মদ মোস্তফা মুন্না, জগলুল পাশা রুশো, অ্যাডভোকেট মতিউর রহমান ফয়সাল, শামীম আশরাফ, আবু রাসেল মিয়া, আশফাকুল রাব্বী পাভেল প্রমুখ। স্থাপনা নির্মাণ বন্ধ ও যা হয়েছে তা অপসারণ করে নদকে পূর্বাবস্থায় ফিরিয়ে দেওয়া, নদ দখল করে যারা অবৈধ স্থাপনা নির্মাণ করছে তাদের বিরুদ্ধে আইনি পদক্ষেপ নেওয়া, সিএস রেকর্ড অনুযায়ী নদের সীমানা চিহ্নিত করে দখলমুক্ত করে সুরক্ষা, সংরক্ষণ ও উন্নয়নে কার্যকর পদক্ষেপ নেওয়ার দাবি জানানো হয় স্মারকলিপিতে।

এ নিয়ে জনউদ্যোগ আহ্বায়ক অ্যাডভোকেট নজরুল ইসলাম চুন্নু বলেন, ‘যখন ওই নির্মাণ নিয়ে জেলা প্রশাসক জানেন না জানা গেল, তখন খবর আসে এ কাজ ময়মনসিংহ সিটি করপোরেশন করছে। নদের জায়গায় কোনো স্থাপনা করা বেআইনি। নদের মাঝখানে স্থাপনা নির্মাণ করা, সরকারি জায়গায় সিটি করপোরেশন যে কাজ করছে তা আইনগত কর্তৃত্বের মধ্যে পড়ে কি না তা নিয়ে প্রশ্ন রয়েছে।’ ‘হাইকোর্টে ২০১৯ সালের ৩ ফেব্রুয়ারি তুরাগসহ দেশের সব নদ-নদীকে জীবন্ত সত্তা হিসেবে ঘোষণা করেছে। তাই এটি করা যাবে না, নদকে ধ্বংস করা যাবে না। সিটি করপোরেশন তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী রফিকুল ইসলাম মিয়া জানান, বেশ কয়েক বছর ধরে দূর্গাপুজা ও কালীপুজায় প্রতিমা বিসর্জন হয় এ স্থান দিয়ে।

দা মাটি থাকায় জায়গাটি ব্যবহার অসুবিধা হয়। এ কারণে সিটি মেয়র স্থানটিকে পাকাকরণে আশ্বাস দেন। যার ফলশ্রুতিতে নির্মাণ। তবে বর্তমানে বিভিন্ন বিতর্কে ঘাটের কাজ বন্ধ থাকলেও সড়কের কাজ চলমান রয়েছে। এ নিয়ে পুজা উদযাপন পরিষদ মহানগর সভাপতি তপন দে বলেন, ‘আমাদের সংগঠন হতে এ নিয়ে কোনো প্রস্তাব পাঠানো হয়নি। তবে হিন্দু ধর্মীয় সব সংগঠনের নেতারা আজ (বুধবার) নদের ঐ স্থানটি সরেজেমিন পরিদর্শন করে সিদ্ধান্ত নেবেন।’ বিষয়টি নিয়ে পানি উন্নয়ন বোর্ড ময়মনসিংহের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. আখলাক উল জামিল সাংবাদিকদের জানান, নদের ভেতর কোনো স্থাপনা নির্মাণ বে-আইনি। সিটি করপোরেশন সরকারের একটি সংস্থা। এ কাজের আগে তাদের কাছ থেকে কোনো ধরনের অনাপত্তি নেওয়া হয়নি, নদে কাজ করা কতটুকু যৌক্তিক তারা লিখিতভাবে সিটি করপোরেশনের কাছে ব্যাখ্যা জানতে চাইবেন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category