• শনিবার, ০৬ মার্চ ২০২১, ১০:১২ পূর্বাহ্ন
Headline
ধর্মপাশায় ২৪নং পিআইসি কতৃক পারিবারিক শ্মশান বিনষ্ট ও ব্যক্তি মালিকানাদিন জমির ক্ষতিতে মানববন্ধন, ভিডিও সুনামগঞ্জে নির্মাণকালেই ১৫ কোটি টাকার সেতুর গার্ডার ভেঙ্গে পড়লো খালে || ভিডিও ধর্মপাশায় ইউপি সদস্য আবুল কাশেম মহত উদ্যোগে রাস্তা মেরামত || ভিডিও ধর্মপাশার বাদশাগঞ্জ বাজারে অগ্নিকাণ্ডে একটি মার্কেট পুড়ে ছাই ৫০ লক্ষাধিক টাকার ক্ষতি || ভিডিও গাইবান্ধায় মাদক সেবনের দায়ে ৫ জনকে কারাদণ্ড || ভিডিও জামালপুরে গাছে ঝুলন্ত এক কিশোরীর লাশ উদ্ধার || ভিডিও পাখিদের আবাসস্থল রক্ষার্তে যশোরের ঝিকরগাছায় গাছে গাছে ভাড় টাঙ্গিয়ে শুভ উদ্বোধন করেছেন একদল সমাজ সেবক জয়পুরহাটে জাতীয় বীমা দিবস পালিত || ভিডিও মোরেলগঞ্জের বহরবুনিয়া ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যানের গণসংযোগ ও আলোচনা সভা || ভিডিও সুনামগঞ্জে খুনের ঘটনায় একজনের যাবজ্জীবন কারাদন্ড || ভিডিও

ইন্দুরকানীর ১০ বছরেও চালু হয়নি স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স!

Reporter Name / ৫৬ Time View
Update : বৃহস্পতিবার, ২৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৯

নিজস্ব প্রতিবেদক:- পিরোজপুরের ইন্দুরকানী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সটি বিশুদ্ধ পানির অভাবে চালু করা সম্ভব হয়নি ১০ পেরিয়ে গেলেও । যার কারনে উপজেলার হাজার হাজার সাধারন মানুষ তাদের স্বাস্থ্য সেবা অধিকার থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন। চালু রয়েছে শুধু আউটডোর সেবা।
উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. শংকর কুমার ঘোষ বলেন, হাসপাতালটিতে সব কিছু থাকলেও শুধু বিশুদ্ধ পানির ব্যবস্থা না থাকায় হাসপাতালটি চালু করতে পারছি না। আমরা বিষয়টি ঊর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষকে অবহিত করেছি। তারা ব্যবস্থা নিলেই দ্রুত হাসপাতালটি চালু করা সম্ভব হবে।

জানা যায়, হাসপাতালটিতে রয়েছে ৫০ শয্যা বিশিষ্ট আধুনিক একটি ভবন। রয়েছে প্রয়োজনীয় আসবাবপত্র, মেডিক্যালের বিভিন্ন সরঞ্জামাদিসহ পর্যাপ্ত অফিস ব্যবস্থাপনা। রোগীদের পথ্যের (ডায়েট) টেন্ডারও দেওয়া হয়েছে। রয়েছে দু’টি উন্নতমানের অ্যাম্বুলেন্স। অভাব শুধু বিশুদ্ধ পানির। আর এ কারণে হাসপাতালটিতে রোগী ভর্তি করে আবাসিক চিকিৎসা দেওয়া সম্ভব হচ্ছে না।

স্থানীয় সূত্রে জানা, ২০০৮ সালে ইন্দুরকানী হাসপাতালটি চালু হওয়ার পর থেকে এ পর্যন্ত ইনডোর সেবা চালু হয়নি। ফলে এ উপজেলার লক্ষাধিক মানুষ চিকিৎসা সেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন। আর তাদের প্রয়োজনে পিরোজপুর, খুলনা, বরিশাল এমনকি ঢাকাতে গিয়েও চিকিৎসা সেবা নিতে হচ্ছে। হাসপাতালটি চালুর দাবিতে স্থানীয়রা বিভিন্ন সময় মানববন্ধনসহ নানা কর্মসূচিও পালন করেছেন।

হাসপাতালের ভারপ্রাপ্ত আবাসিক মেডিক্যাল অফিসার শাকিল আহমেদ খান বরলেন, হাসপাতালে ব্যবহার ও খাবার জন্য বিশুদ্ধ পানির তীব্র সংকট রয়েছে। শুধু মাত্র একটি পুকুরের পানির ওপরে নির্ভর করতে হয়, যেটা বর্ষার পানিতে পূর্ণ থাকলেও শীতের মৌসুমে শুকিয়ে যায়। পানির সমস্যার সমাধান না হলে হাসপাতালটি চালুর পরে এ সমস্যা মারাত্মক আকার ধারণ করবে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category