• বুধবার, ০১ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ১২:০৯ অপরাহ্ন




ভান্ডারিয়ায় বেড়েছে বেওয়ারিশ কুকুরের উপদ্রব আশংকা জনক হারে বৃদ্ধি !

/ ২১১ বার পঠিত
আপডেট: রবিবার, ২২ সেপ্টেম্বর, ২০১৯

মোঃ বাদল, পিরোজপুর প্রতিনিধিঃ পিরোজপুরের ভান্ডারিয়া বন্দরে বেওয়ারিশ কুকুরের উপদ্রব আশংকা জনক হারে বৃদ্ধি পেয়েছে। ক্রেতাদের ক্রয়কৃত খাদ্যসামগ্রী কেড়ে নিচ্ছে, ছাত্র-ছাত্রী, পথচারী, অটোভ্যান, সাইকেল ও মোটরসাইকেল আরোহীদের কে কুকুরের দল তাড়া করে এমন অভিযোগ স্থানীয় এলাকাবাসীদের। সরজমিনে দেখা যায়, উপজেলা শহরের বিভিন্ন অলিগলিতে সকালে ও রাতে পাল বেঁধে ঘুরে বেড়ায় কুকুরের দল। বাজারের ক্রেতাদের ক্রয়কৃত খাদ্যসামগ্রী কেড়ে নিতে কুকুরের হামলায় করছে, এমনকি ছাত্র-ছাত্রী, একাকী কোনো পথচারী কিংবা অটোভ্যান, সাইকেল ও মোটরসাইকেল আরোহীকে কুকুরের দল তাড়া করে কামড়ানোর চেষ্টাও করছে। কুকুরের উৎপাতে অতিষ্ট হয়ে উঠেছে জনগণ। তার ক্ষোভ প্রকাশ করে জানিয়েছে, গত কয়েক বছর ধরে প্রশাসনের পক্ষ থেকে কুকুর নিধন অভিযান বন্ধ রাখে। এ কারনে পৌর শহরের পাড়া মহল্লা ও বিভিন্ন ওয়ার্ডে বেওয়ারিশ কুকুরের সংখ্যা ব্যাপক হারে বৃদ্ধি পেয়েছে। সে সাথে উপজেলার প্রতিটি পাড়া মহল্লায় ২০/৩০টি কুকুর এক সাথে চলাচল করতে দেখা যাচ্ছে। প্রতিনিয়ত কুকুর আতংকে থাকে স্থানীয় এলাকাবাসী। অনেক এলাকায় একাধিক বয়স্ক কুকুরের গায়ে পচন ধরতে দেখা যাচ্ছে।

এসব দেখেও ব্যবস্থা নিচ্ছে না সংশ্লিষ্ট প্রশাসন। সব মিলিয়ে একটি অসস্থিকর পরিবেশের মধ্য দিয়ে ভান্ডারিয়া বাসীকে তাদের স্বস্ব এলাকায় বাধ্য হয়ে বসবাস করতে হচ্ছে। ভান্ডারিয়া পৌর প্রশাসক ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নাজমুল আলম জানান, পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষা করার জন্য পরিবেশ অধিদপ্তর থেকে কুকুর নিধনের ওপর নিষেধাজ্ঞা থাকার কারণে নিধন কর্মসূচি আপাতত বন্ধ রয়েছে। হাইকোর্ট থেকে সকল প্রকার প্রাণিহত্যা নিষেধ থাকায় তা এখন সম্ভব নয়।
ভান্ডারিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এর চিকিৎসকরা জানান, কুকুরের কামড়ে মরনব্যাধি জলাতঙ্ক রোগ হয়। ভ্যাকসিন না নিলে মৃত্যু অনিবার্য।





আরো পড়ুন