• বৃহস্পতিবার, ২০ জানুয়ারী ২০২২, ০২:২৭ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম
ঠাকুরগাঁও পলিটেকনিক ইন্সটিটিউটের শিক্ষকদের মানববন্ধন ও অবস্থান কর্মসুচি স্বরূপকাঠির ইট ভাটাগুলোতে কাঠ পোড়ানো হচ্ছে, প্রশাসন নিরব (আটটি ভাটার চারটিই অবৈধ) দেখার ও বলার কেউ নেই কমলগঞ্জ ডোবা থেকে এক নারীর মৃতদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ  ইসি গঠনের আইন হবে ‘যেই লাউ সেই কদু’: বিএনপি ২৫ জানুয়ারি বাকশাল দিবস পালন করবে বিএনপি রাষ্ট্রীয়যন্ত্র ক্ষমতাসীনদের লাঠিয়াল: রুহুল কবির রিজভী সরকার বিদেশিদের ওপর নয় জনগণের ওপর নির্ভরশীল: তথ্যমন্ত্রী হাছান মাহমুদ নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপির সাধারণ এটিএম কামালকে বহিষ্কার সংগৃহীত ছবি এবার দল থেকে তৈমূরকে বহিষ্কার করলো বিএনপি ঢাকাস্থ বৃহত্তম ফরিদপুর ফোরাম এর সহ সভাপতি প্রয়াত আব্দুর রশিদ মৃধার রুহের মাগফেরাতের দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত

শূন্য ভোট পেল প্রার্থী নজরুল!

অনলাইন ডেস্ক / ৫২ Time View
Update : সোমবার, ২৯ নভেম্বর, ২০২১

নাগেশ্বরীতে ইউপি নির্বাচনে কোনো ভোট পাননি রামখানা ইউনিয়নের ৩ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য প্রার্থী টিউবওয়েল প্রতীকের নজরুল ইসলাম।রবিবার দিনশেষে  ভোট গননা করে দেখা গেছে, তিনি একটি ভোটও পাননি। তাহলে তিনি, তার স্ত্রী, পরিবারের অন্যান্য সদস্য, আত্মীয়স্বজন, তার শুভাকাঙ্খি, কর্মী-সমর্থক ও এজেন্ট কেউই কি তাকে ভোট দেননি।

তৃতীয় দফা রবিবার অনুষ্ঠিত নির্বাচনে কুড়িগ্রামের নাগেশ্বরী উপজেলার রামখানা ইউপি নির্বাচনে কোন ভোট পাননি রামখানা ইউনিয়নের টিউবওয়েল প্রতীকের সদস্য প্রার্থী নজরুল ইসলাম। নিজে প্রার্থী হয়ে ভোট না পাওয়ার বিষয়টি এলাকায় ব্যাপক আলোচনার জন্ম দিয়েছে। গত ২৮ নভেম্বর রামখানাসহ নাগেশ্বরী উপজেলার ১৩ ইউনিয়নে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়।

প্রতীক প্রাপ্তির পর পোষ্টার ছেপে বিজয়ী হতে অন্যান্য প্রার্থীর মত কর্মী-সমর্থকদের নিয়ে ভোটের প্রচারনাও করেন তিনি। পরে শেষে ২৮ নভেম্বর ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠানে তার পুলিং এজেন্টও ছিল। শূন্য ভোটের ঘটনায় হতভম্ব এলাকার মানুষ। আদৌ তা সম্ভব কিনা। নজরুল ইসলাম টিউবওয়েল প্রতীকে কোন ভোট না পেলেও তার প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থী নুরজামাল শেখ ফুটবল প্রতীকে পেয়েছেন ৭১৬, ফজলে রহমান বৈদ্যুতিক পাখা প্রতীকে পেয়েছেন ৪, সফিকুল ইসলাম তালা প্রতীকে পেয়েছেন ৮৭৭ ভোট। ভোটের এ ফলাফলে কোনভাবে হিসেব মেলাতে পারছেন না প্রার্থী নজরুল ইসলাম।

তিনি জানান, এ ঘটনায় আমি অত্যন্ত মর্মাহত। তিনি অত্যন্ত দুঃখ ভারাক্রান্ত মনে বলেন, যদি কর্মী-সমর্থকরাও আমাকে ধোকা দিয়ে থাকেন তাহলে আমি, আমার স্ত্রী মেহরা খাতুন, বড় ছেলে মফিজুল ইসলাম, তার স্ত্রী কল্পনা খাতুন, মেজ ছেলে এনামুল হক, তার স্ত্রী ফরিদা বেগমসহ রক্তের সম্পর্কের আত্মীয় স্বজনরা অনেকেই আমাকে ভোট দেন। প্রায় দেড়শত থেকে দুইশত ভোট আমি নিশ্চিত পাওয়ার কথা। সেখানে শুন্য ভোট হয় কিভাবে। আমি এটা মেনে নিতে পারছি না। তাই আমি সংশ্লিষ্ট অফিসে ভোট পুনঃগননার আবেদন জানিয়েছি।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category