নাঙ্গলকোট জেনারেল হসপিটালের মালিকের ক্ষমতার অপব্যবহার, সোশ্যাল-মিডিয়ায়-ভাইরাল!

0
126

অনলাইন দেস্ক:- একটি হাসপাতালের প্রধান উদ্দেশ্য মানব সেবা। তার সেবার আড়ালে যদি থাকে হীন মনমানসিকতা তাহলে তো- প্রশ্নবিদ্ধ থেকেই যায়। তাও আবার নিজ কর্মচারীর সাথে। যাদের কে দিয়ে সেবা প্রদান করবে, তাদের কেই যদি সেবা না দিতে পারে, তাহলে- অন্যদের কে কি সেবা দিবে, তা আর বলার অবকাশ রাখে না।
এমনই এক লোমহর্ষক ঘটনার জন্ম দিলো “নাঙ্গলকোট জেনারেল হাসপাতাল”।
বৈশ্বিক মহামারী করোনা ভাইরাস সর্বোস্তরের মানুষের জীবনে প্রভাব বিস্তার করে। তাই বলে কারো অধিকার হরণ করা কিন্তু কোন সভ্য মানুষের কাজ নয়।

নিয়ম অনুযায়ী কোন কর্মচারীকে চাকুরীচ্যুত করলে তার পাওনা বুঝিয়ে দিতে হয়। কিন্তু ক্ষমতা বলে- নাঙ্গলকোট জেনারেল হাসপাতালের মালিক “কামরুল হাসান সপন” বেতনের টাকা পরিশোধ না করেই তাদের কে বিতাড়িত করে।
মুশফিকুর রহমান ও মনির হোসেন। দীর্ঘদিন যাবৎ ঐ হাসপাতালে চাকরি করে। প্রতিমাসের বেতনও ঠকমত পেতেন না। দু’জনেরই বাড়ি ভোলা। সে সুবাদে কিছু বলতেন না। যাওয়ার সময় দু’জনে ৫৫,৫০০/= পাওনা হয়। কিন্তু দেরকে এক টাকাও না দিয়ে তাড়িয়ে দেয়। দু’জন মানুষের ধারে ধারে গিয়েও কোন বিচার পেলেন না। শেষমেশ তাতা অশ্রুভরা চোখে চলে যেতে বাধ্য হয়। এসকল তথ্য সোশ্যাল মিডিয়াতে পেয়ে আমরা তাদের সাথে যোগাযোগ করলে ঘটনা নিশ্চিত করেন।

যাওয়ার সময় হাসপাতাল থেকে একটা চিকিৎসা সরঞ্জামও নিয়ে যায় বলে স্বীকারোক্তি করেন।
স্থানীয় লোকজনের সাথে বিষয় টি সম্পর্কে জানতে চাইলে ঘটনার সত্যি বলে অবহিত করেন এবং এরকম আরো ৮/১০ জন কর্মচারী বেতনের টাকা না পেয়ে চলে যেতে তারা দেখেছেন।

এবিষয়ে নাঙ্গলকোট জেনারেল হাসপাতালের মালিক কামরুল হাসান সপনকে জিজ্ঞেস তিনি স্বীকার করেন।
কুমিল্লা সিভিল সিভিল সার্জন অফিস এই বিষয়টি সম্পর্কে কথা বললে বলেন, এটা আমাদের জানা নেই। তদন্ত সাপেক্ষে আমরা ব্যবস্তা নেব।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here