ভিক্ষুকের বয়স্ক ভাতার কার্ডের টাকা আত্মসাতের অভিযোগ ইউপি সদস্যের বিরুদ্ধে!

0
16

আমজাদ হোসেন নওগাঁ :- খুলনার পাইকগাছা উপজেলার অচল প্রতিবন্ধী ও বয়স্কার ভাতার কার্ড করে দেবার নামে ভিক্ষুকের টাকা আত্মসাতের অভিযোগ উঠেছে পাইকগাছা ইউনিয়নের ৪ নং ওয়ার্ড ইউপি সদস্য হারুন জোম্মাদারের বিরুদ্ধে।

এই বিষয়ে ভুক্তভোগীরা খুলনা -৬ আসনের জাতীয় সংসদ সদস্য আলহাজ্ব মোঃ আকতারুজ্জান বাবু (এমপি)বরাবর লিখিত অভিযোগ করবেন বলে জানিয়েছেন।

সংসদ সদস্য আকতারুজ্জামান বাবু (এমপি) জানান ভিকটিমের কাছ থেকে লিখিত অভিযোগ পেলে তদন্ত সাপেক্ষে যদি ইউপি সদস্য দোষী প্রমাণিত হয় তাহলে তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এবিষয় জানার জন্য ইউপি সদস্য হারুন জোম্মাদারের মুঠো ফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও তিনি ফোন ধরেনি উঠায়নি।

পাইকগাছা উপজেলার আলমতলা গ্রামের মৃত আলেক আলীর স্ত্রী মানোয়ারা বেগম(৬৫ বছর বায়সী) এর কাছ থেকে গত তিন বছর আগে তিন হাজার টাকা নেন ওয়ার্ড সদস্য হারুন জোম্মাদার। বিধবার কার্ড করে দেবার কথা বলে।

কিন্তু মনোয়ারা বেগমের বয়স্ক ভাতার গেল তিন বছরেও পায়নি। মনোয়ারা বেগম সংবাদ টিভির সাংবাদিক আমজাদ হোসেনকে জানেন যে তিনি মানুষের বাড়ী বাড়ী ভিক্ষা করে ।ভিক্ষের টাকা থেকে তিন হাজার টাকা যোগার করে হারুন মেম্বারের কাছে দিয়েছিলেন,

এতো দিন কার্ড দেবে বলে এখন পর্যন্ত দেয়নি। কিন্তু এখন আবার হারুন মেম্বারের বলছে অন্য কথা কার্ডের কথা বলতে তিনি বলেন কার্ড করে দিতে পারবেন না বলে ভিক্ষুক বৃদ্ধা মহিলাকে নিজেই করে নিতে বলছেন তবে টাকা ফেরতের ব্যাপারে কিছুই বলছেন না।

অসহায় ভিক্ষুক মনোয়ারা বেগম আরো জানান যে তার একটি সন্তান,সেও আবার প্রতিবন্ধী কিছু করতে পারে না। তার স্বামীর মৃত্যুর পরে থেকে মনোয়ারা বেগমের ভিক্ষের টাকায় দু’জনার সংসার চলে অন্যের ভিটা-বাড়িতে থাকেন মা ও ছেলে দু”জনে।

এদিকে একই ধরনের অভিযোগ করেন ওই গ্রামেরই আরেক ভূক্তভূগী আব্দুল মাজেদ সরদারের স্ত্রী।তিনি বলেন আমার (ওএমএস)এর কার্ড করে দেবেন বলে আমার কাছ থেকে ১৫০০ শত টাকা নিয়েছে শরিফের স্ত্রী।তিনি আরও জানান শরিফের স্ত্রী টাকা নিয়ে হারুন মেম্বারের সাথে ভাগাভাগি করেন।তিনি বলেন তিনার স্বামী কৃষিকাজ করেন। স্বামীর মাথার সমস্যও আছে, মাঝে মাঝে মাথায় সমস্য দেখা দিলে আর কাজ করতে পারে না। অনেক কষ্টে চলছে তাদের সংসার।এলাকায় অনেকেই ইউপি সদস্য হারুন জোম্মাদারের ভয়ে মুখ খুলছেন না।

এ ব্যাপারে মুহাম্মদ আরাফাতুল আলম সহকারী কমিশনার (ভূমি) পাইকগাছা, জানান আমরা লিখিত অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নিবো। আমজাদ হোসেন, নওগাঁ, সংবাদ টিভি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here