গাজীপুরে গ্রীন সোয়েটারের এমডি আনোয়ার সাদাতের বিরুদ্ধে নারী ‍নির্যাতন সহ ৭ লাখ টাকা আত্মসাতের অভিযোগ!!

0
30

নিজস্ব প্রতিবেদক::- গাজীপুরের সাইনবোর্ড এলাকার গ্রীন সোয়েটারের এমডি আনোয়ার সাদাতের বিরুদ্ধে গার্মেন্টস নারী উদ্যোক্তা নওমুসলিম উম্মে সালমার কাজের বিল বাবদ পাওনা ৭ লাখ টাকা আত্মসাতের অভিযোগ পাওয়া গেছে। কাজ শেষে বিল দেয়ার কথা বলে ৭ লাখ টাকার ডুকমেন্টের মুলকপি হাতিয়ে নিয়ে উক্ত ডুকমেন্ট গুলো গায়েব করা সহ ভাড়াটে সন্ত্রাসী দ্বারা ঐ নারীকে মারধর করে তাড়িয়ে দেয়। এঘটনায় সালমা বেগম আদালতে গিয়ে মামলা দায়ের করে। মামলা নং-২৮।

জানা গেছে, গার্মেন্টস নারী উদ্যোক্তা নওমুসলিম উম্মে সালমা গাজীপুরস্থ আনোয়ার সাদাতের মালিকানাধীন গ্রীন সোয়েটার ফ্যাক্টরী হতে অর্ডারে সোয়েটারের কাজ করে সর্বমোট ৭ লাখ টাকা পারিশ্রমিক পাওনা হন। সালমা উক্ত টাকার বিল বাউচার করে আনোয়ারের নিকট জমা দেয়। অতপর আনোয়ার কৌশলে সালমার নিকট থেকে উক্ত কাজের মুলনথিপত্র গুলো হাতিয়ে নিয়ে সেগুলো আগুন জালিয়ে নষ্ট করে ফেলে এবং তাকে চরম মারধর করে হাতের মোবাইল সহ গলায় থাকা ১ ভরি স্বর্নের চেইন ও ৮ আনা কানের দুল ছিনিয়ে নেয়। এঘটনায় সালমা স্থানীয় কাউন্সিলর হাজী মিজানুর রহমান মিজানের নিকট বিচার প্রার্থনা করলে উক্ত কাউন্সিলর জানান তিনি আনোয়ারের বিচার করতে পারবে না। অতপর সালমা কোর্টে গিয়ে মামলা দায়ের করলেও আনোয়ার প্রভাব খাটিয়ে স্থানীয় থানা পুলিশকে নিস্ক্রিয় করে রাখে। বিচারের আশায় সালমা এখন দ্বারে দ্বারে ঘুরে বেড়াচ্ছে।

এব্যাপারে সালমা বলেন, আমি কর্মচারী নিয়ে অনেক কষ্ঠ করে আনোয়ার সাদাতের সোয়েটার ফ্যাক্টরীর কাজের অর্ডার সম্পূর্ন করে ৭ লাখ ২৪ হাজার টাকা বিল পাওনা হই। কিন্তু আনোয়ার আমার বিলের উক্ত টাকাগুলো আত্মসাৎ করার জন্য সন্ত্রাসী কার্যক্রম চালাচ্ছে। আমাকে প্রানে মেরে ফেলার সর্বাত্মক চেষ্টা চালিয়ে আসছে। কোর্ট চত্বরে এসেও আমাকে মারধর করে। আমি একজন অসহায় নারী হিসেবে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সহযোগিতা কামনা করি। কারন আমি আনোয়ারের কাজগুলো ডেলিভারী দেয়ার জন্য শ্রমিকদের বেতনের টাকা পরিশোধ করতে গিয়ে আরো ৫/৬ লাখ টাকা ঋণ গ্রস্থ হয়ে গেছি। আমার স্বামী বর্তমানে খুবই অসুস্থ্য। ছোট দুটি সন্তান নিয়ে আমি খুবই মানবেতর জীবন কাটাচ্ছি। তার উপরে আনোয়ারের দেয়া প্রাননাশের হুমকি মাথায় নিয়ে পালিয়ে বেড়াচ্ছি।

তবে আমি পাওনা ৭ লাখ টাকার বিলের মধ্যে ৪ লাখ টাকা বিলের প্রমান আমার কাছে আছে। কিন্তু ৩ লাখ টাকা প্রমান পত্র আনোয়ার নষ্ট করে ফেলেছে। এখন সে আমাকে কোন টাকা দিবে না বলে হুমকি দিয়ে আসছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here