মুরাদনগরে ৩কিশোরকে নির্যাতনের অভিযোগে ইউপি চেয়ারম্যানসহ ৪ জনের বিরুদ্ধে মামলাঃ আটক-২

0
9

নিজস্ব সংবাদদাতাঃ
কুমিল্লা মুরাদনগর সন্দেহে তিন কিশোরকে চার দিন  আটকে রেখে নির্যাতনের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় বুধবার উপজেলার কামেল্লা গ্রামের মৃত শহীদ মিয়ার ছেলে ইউপি সদস্য কামাল উদ্দিন ও গফুর চৌধুরীর ছেলে দরবেশ চৌধুরীকে আটক করে পুলিশ। নির্যাতনের শিকার জেলার হোমনা উপজেলার ওপার চর গ্রামের চান মিয়ার মিয়ার গ্রামের চান মিয়ার মিয়ার ছেলে আমানুল্লাহ(১৪), আনোয়ার হোসেনের ছেলে জাহাঙ্গীর আলম(১২) ও ওমর ফারুকের ছেলে আসাদুল্লাহ(১১)।

২০ সেপ্টেম্বর দুপুরে কামাল আহমেদ চৌধুরী জামে মসজিদের সামনে পরিত্যক্ত প্লাস্টিকের বোতল ঢুকানো অবস্থায় ওই তিন কিশোরকে চোর সন্দেহে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান ফিরোজ খানের নেতৃত্বে ইউপি সদস্য কামাল উদ্দিন চৌধুরীসহ কয়েকজন লোক আটক করে।
আটক করার পর তাদের মারধর করে নান্টু ঠাকুরের বাড়ি নিয়ে যায়। সেখানেও তাদের কে দ্বিতীয় দফায় মারধর করা হয়। পরে সন্ধ্যায় তাদের কামাল্লা ইউনিয়ন পরিষদ ভবনের দ্বিতীয় তলায় একটি রুমে আটকে রাখা হয়।

ঘটনাস্থল থেকে আমানুল্লাহ মা আসমা বেগম কে ফোন করে আসতে বলা হয়।
খবর পেয়ে আসমা বেগম চেয়ারম্যানের সঙ্গে দেখা করেন। এ সময় ছেড়ে তাদেরকে দেওয়ার শর্তে, আসমা বেগমের কাছে জরিমানা বাবদ ৬০ হাজার টাকা দাবি করেন চেয়ারম্যান ফিরোজ খান। আসমা বেগম তার দারিদ্রতার কথা বলে তিন কিশোরকে খাবার খাওয়ানোর জন্য ২ হাজার টাকা দিয়ে যান। আর বলে যান তারা যদি কোন অপরাধ করে থাকে তাহলে তাদেরকে প্রয়োজনে আইনের হাতে তুলে দিন। কিন্তু আমি কোন টাকা দিতে পারবো না।

জরিমানা টাকা না পেয়ে চেয়ারম্যান ও তার লোকজন ২ হাজার টাকা ওই তিন কিশোরকে খাবার না দিয়ে উল্টো তাদেরকে মারধর করে আটকে রাখে। বিষয়টি এলাকায় জানাজানি হলে খবর পেয়ে মুরাদনগর থানার এসআই নাজমুল আলমসহ একদল পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে সোমবার দুপুরে তিন কিশোরকে উদ্ধার করে। পরে আসমা বেগম বাদী হয়ে ওই দিন রাতেই ইউপি চেয়ারম্যান ফিরোজ খান, ইউপি সদস্য কামাল উদ্দিন, নান্টু ঠাকুর, দরবেশ চৌধুরীর নাম উল্লেখ করে থানায় একটি মামলা করেন।
অভিযোগের ভিত্তিতে পুলিশ অভিযান চালিয়ে দুই জনকে গ্রেপ্তার করে। এবিষয়ে- মুরাদনগর থানার ওসি একেএম মনজুর আলম বলেন, এ ঘটনায় আসমা বেগম নামে এক কিশোরের মা বাদী হয়ে মামলা করেছেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here