নারায়নগঞ্জ জেলা প্রবাসী কল্যাণ আন্তজাতিক ফোরামের উদ্যোগে আলোচনা ও সংবর্ধনা সভা।।

0
18

বিশে^ও বিভিন্ন দেশে অবস্থানরত নারায়ণগঞ্জ জেলার প্রবাসী ও দেশের অবস্থানরত প্রবাসী পরিবারদেও সমন্বয়ে একটি অরাজনৈতিক সামাজিক সমাজসেবা মূলক সংগঠন জেলা প্রবাসী কল্যাণ আন্তর্জাতিক ফোরামের উদ্যোগে আলোচনা সভা আয়োজিত হয়েছে।

রবিবার (৮ সেপ্টেম্বর) শহরের জেলা গণগ্রন্থাগারে বিকাল ৫ টায় বিভিন্ন প্রবাসী ও তাদের পরিবার স্বজনদের সাথে নিয়ে সভাটি অনুষ্ঠিত হয়। প্রবাসীদের প্রবাসে দেশের সুনাম অক্ষুন্ন রাখা ও বৈধ পথে রেমিটেন্স প্রেরণ শীর্ষক ও রেমিটেন্স যোদ্ধা গুণিজন সংবর্ধনা আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি জাতীয় শ্রমিক লীগের সভাপতি শুক্কুর মাহমুদ বলেন, শ্রমিকদের আন্দোলন করতে হয় না। কারণ আমাদের প্রধানমন্ত্রী নিজেই শ্রমিক বান্ধব সরকার। প্রবাসীরা দিনরাত এক করে প্রবাসের মাটিতে কাজ করে যাচ্ছে। পরিবার পরিজন থেকে হাজার হাজার মাইল দুরে কত কষ্ট করে অর্থ উপার্জন করে দেশে পাঠাচ্ছে।বৈধ পথে অর্থ প্রেরনের জন্য মাননীয় প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনা প্রবাসীদের প্রেরিত রেমিটেন্স এর উপর ২% প্রনোদনা দেওয়ার ঘোষনা দিয়েছেন।যার ফলশ্রুতিতে আজ রেকর্ড সংখ্যক অর্থ ব্যাংকিং খাতে আসছে। ধন্যবাদ জানাই আমার নারায়মগঞ্জের ভাইরা আজকে একটি সংগঠন দাড় করিয়েছে।এমন সংগঠন সত্যিই আমি মুগ্ধ হয়েছি।আমি চাই এমন সংগঠন সারা দেশে গড়ে উঠুক তার অগ্রনী ভুমিকা পালন করনে আমার নারায়নগঞ্জ জেলা প্রবাসী কল্যাণ আন্তর্জাতিক ফোরাম থেকে।
সংগঠনের পাশে থাকা অংগীকার করে বলেন, আপনারা আমাকে ডাকলে আমি সর্বদা আপনাদের পাশে থাকবো। এমন একটা অনুষ্ঠানে নিমন্ত্রণ পেয়ে সত্যি আনন্দীত। আজকের যে আয়োজক বৃন্দ আছেন বিশ্বের বিভিন্ন দেশে অবস্থার’ রত ভাইয়ের আপনাদের সংগঠন নারায়নগঞ্জে একটা মাইলফলক ভুমিকা রাখবে বলে আমি বিশ্বাস করি।
বিশেষ অতিথি নারায়ণগঞ্জ সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আসাদুজ্জামান বলেন, আমাদের প্রবাসিদের টাকা সঠিক কাজে ব্যবহার হয় না। তাদের পরিবারের সদস্যরা টাকা নষ্ট করে ফেলে। আমাদের দেশের স্ত্রীদের স্বামীরা যখন বিদেশ চলে যায়, তারা তখন শশুর বাড়ি ছেড়ে বাবার বাড়ি চলে যায়। আর তখনি খালাতো, ফুফাতো মামাতো ভাইয়ের সাথে তার হয়ে যায়। যার জন্যে অনেক প্রবাসিদের বউ এবং টাকা হারাতে হয়। অর্থাৎ বউও গেলো টাকাও গেলো।

তিনি আরো বলেন, প্রবাসি স্ত্রীদের উচিৎ স্বামীর বাড়িতে থাকা। শ্বশুর শ্বাশুরীর সেবা করতে হবে। তবে মাঝে মাঝে বাবার বাড়িতে বেরাতে যাবে। প্রবাসি থাকা কালীন আপনাদের কোন সমস্যা হলে আমাকে জানাবেন। আমরা বিষয়টা দেখবো। আপনাদের জন্য আমরা কাজ করতে বাধ্য। বাংলাদেশে থাকলে বুঝা যায় না দেশের মানুষের প্রতি কত ভালোবাসা। কিন্তু বিদেশে থাকলে তা বুঝা যায়।

সদর ওসি বলেন, প্রধানমন্ত্রী সন্ত্রাসীদের আগে মাদকের বিষয়ে ব্যবস্থা নিয়েছেন। যারা মাদক আনে তারা ক্রাইম করে। কিন্তু যারা মাদক খায় তারা অসুস্থ্য। তাই মাদক বিক্রেতার এবং মাদক সেবন কারিদের বিরুদ্ধে আমাদের জিরুটলারেন্স ঘোষনা করা হয়েছে। অনুষ্ঠানে নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রবাসি কল্যাণের সভাপতি মুহসিন দেওয়ানের সভাপতিত্বে উপস্থিত ছিলেন, প্রধান অতিথি কেন্দ্রীয় শ্রমিকলীগের সভাপতি শুক্কুর মাহমুদ, দৈনিক সচেতন পত্রিকার সম্পাদক মো. ইসলাম মিয়া, বিষের বাঁশি ও নিউজ২৪.ওয়েবসাইট সম্পাদক শ্রী সুভাষ সাহা, এছাড়াও সেলিম, আবু বকর, সাইদুর রহমান প্রমুখ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here